৫ হাজার ইসরায়েলিকে নাগরিকত্ব দিয়েছে আমিরাত

আরব আমিরাত দিন দিন মুসলিমদেশ চির দুশমন ইহুদীবাদী ইসরাইলের দিকে ঝুঁকে পড়ছে। ফিলিস্তিনের ইসলামি জিহাদ আন্দোলন অভিযোগ করে বলেছে যে, পাঁচ হাজার ইসরায়েলিকে নাগরিকত্ব দিয়ে ফিলিস্তিনি জাতি ও মুসলিম বিশ্বের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে সংযুক্ত আরব আমিরাত। আবুধাবিকে ‘বিশ্বাসঘাতক ও আপসকামী’ সরকার বলেও বর্ণনা করেছে এই প্রতিরোধ আন্দোলন।

ইসলামি জিহাদের মুখপাত্র তারিক সালমি ইয়েমেনের আল-মাসিরা টিভিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এই অভিযোগ করেছেন। তিনি দখলদার ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপনের ব্যাপারে আমিরাতসহ অন্যান্য আরব দেশকে তাদের ভুল হিসাব-নিকাশ পুনর্বিবেচনা করা আহ্বান জানান।

সালমি বলেন, বিশেষ করে সাম্প্রতিক গাজা যুদ্ধে যখন ফিলিস্তিনি জনগণের শক্তিমত্তা এবং তেল আবিবের ‘অজেয়’ থাকার ভুয়া দাবি প্রমাণিত হয়েছে তখন ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন করে আরব দেশগুলোর দুর্বলতা প্রকাশ করা উচিত হবে না।

এর আগে বৃহস্পতিবার ‘এমিরাটস লিকস’ ওয়েবসাইট জানায়, গত তিন মাসে প্রায় ৫ হাজার ইসরায়েলি সংযুক্ত আরব আমিরাতের নাগরিকত্ব লাভ করেছে। আমিরাত বিদেশিদেরকে নাগরিকত্ব দেয়ার বিধান রেখে আইন সংশোধন করার পর ইসরায়েলিরা এই নাগরিকত্ব পেলো। এর আগে বিদেশিদেরকে নাগরিকত্ব দিতো না সংযুক্ত আরব আমিরাত।

বিভিন্ন সূত্রের বরাতে এমিরাটস লিকস জানায়, ইসরায়েলিরা তাদের নাগরিকত্ব ত্যাগ না করেই আমিরাতের নাগরিকত্ব গ্রহণ করার সুযোগ লাভ করেছে। এই নাগরিকত্ব লাভের ফলে ইহুদিরা এখন অনায়াসে এবং অগ্রিম ভিসা গ্রহণ ছাড়াই পারস্য উপসাগর ও আরব দেশগুলো অতিক্রম করতে পারবে।