১০ লাখ ফিলিস্তিনিকে গ্রেফতার করেছে ইসরাইল

১৯৬৭ সালের মধ্যপ্রাচ্য যুদ্ধের সময় থেকে প্রায় ১০ লাখ ফিলিস্তিনিকে গ্রেফতার করেছে ইসরাইলি বাহিনী। এর মধ্যে ইসরাইলের কারাগারে মৃত্যুবরণ করেছে ২২৬ জন।

শনিবার ফিলিস্তিনের স্থানীয় একটি বেসরকারি সংস্থা (এনজিও) এ তথ্য জানিয়েছে। খবর আনাদোলু এজেন্সির।

এক বিবৃতিতে ‘বন্দি এবং সাবেক বন্দি’ বিষয়ক (ডিটেইনি অ্যান্ড এক্স ডিটেইনি) কমিশন জানিয়েছে, এই ১০ লাখ গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে ১৭ হাজার নারী এবং ৫০ হাজার শিশু। এছাড়া ইসরাইল ফিলিস্তিনিদের বিরুদ্ধে ৫৪ হাজার প্রশাসনিক গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছে। 

এই প্রশাসনিক গ্রেফতারি পরোয়ানা নীতির ফলে বিচার এবং অভিযোগ গঠন ছাড়াই ইসরাইল গ্রেফতারকৃতদের বন্দিত্বের মেয়াদ বাড়াতে পারে।

এনজিওটি আরও জানিয়েছে, ইসরাইলের নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে গ্রেফতারকৃত সবাই বিভিন্ন ধরনের শারীরিক, মানসিক নির্যাতন এবং নিষ্ঠুর আচরণের অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হয়েছেন।

ফিলিস্তিনির কারাবন্দিদের হিসেব রাখা এনজিওটি জানিয়েছে, বর্তমানে দখলদার ইসরাইলের কারাগারে প্রায় সাড়ে চার হাজার ফিলিস্তিনি বন্দি আছে। এর মধ্যে ৪১ জন নারী, ১৪০ শিশু এবং ৪৪০ জন প্রশাসনিক আদেশের বন্দি রয়েছেন।

উল্লেখ্য, ১৯৬৭ সালের মধ্যপ্রাচ্য যুদ্ধে ইসরাইল ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীর, পূর্ব জেরুজালেম, সিরিয়ার গোলান মালভূমি এবং মিশরের সিনাইউপদ্বীপ দখল করে নেয়। যদিও ১৯৭৯ সালে মিসরের সঙ্গে এক শান্তি চুক্তির পর ইসরাইল সিনাই উপদ্বীপ মিশরকে ফেরত দেয়। 

কিন্তু বাকি অঞ্চলগুলোতে ইসরাইল বাহিনী ফিলিস্তিনিদের সড়ক, আকাশ এবং নৌ পথে অবরুদ্ধ করে রেখেছেন। এছাড়া, ইসরাইল প্রতিনিয়ত পূর্ব জেরুজালেম থেকে ফিলিস্তিনি মুসলমানদের অবৈধভাবে জোরপূর্বক উচ্ছেদ করছে।