হাজারা নেতা আব্দুল আলি মাজারির মূর্তি গুঁড়িয়ে দিল তালেবান

মুখে শান্তির কথা বললেও তালেবান যে সে পথের কাছে দিয়ে যাবে না তা আরো একবার প্রমাণ হলো। আফগানিস্তান দখলের কয়েক দিনের মধ্যেই বামিয়ানে হাজারা নেতা আব্দুল আলি মাজারির মূর্তি ভেঙে ফেলেছে তালেবান। আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের খবরে এই তথ্য জানা গেছে।

এই ঘটনা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আগের আর বর্তমান পরিস্থিতির ছবি পোস্ট করেছেন মানবাধিকার কর্মী সেলিম জাভেদ। ক্যাপশানে তিনি লিখেছেন, ‘সাধারণ ক্ষমার থেকেও এটি অনেক বেশি।’ পাশাপাশি সেলিম জাভেদ আরো বলেছেন, তালেবানরা বামিয়ানে নিহত হাজারা নেতা আব্দুল আলি মাজারির মূর্তিটি উড়িয়ে দিয়েছে। এর আগে তালেবানরা যখন ক্ষমতায় এসেছিল তখন এই নেতাকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছিল। বিশাল একটি বুদ্ধ মূর্তি ভেঙে দিয়েছিল। একই সঙ্গে সেই সময় তলেবানরা দেশের বেশ কিছু ঐতিহ্যবাসী আর প্রত্নতাত্ত্বিক স্থান ও নষ্ট করে দিয়েছিল।

হাজারি আফগানিস্তানের একটি উপজাতী। মূলত আফগানিস্তানের মধ্য পার্বত্য অঞ্চলে এই উপজাতীর বাস। এরা মূলত শিয়া মুসলিম সম্প্রদায়ের হয়ে থাকে। সুন্নি মুসলমানদের বিরুদ্ধে যুদ্ধের দীর্ঘ ইতিহাস রয়েছে। অনেক ঐতিহাসিকরা মনে করেন হাজারারা মঙ্গল সাম্রাজ্যের প্রতিষ্ঠাতা চেঙ্গিস খানের বংশধর। ১৩ শতকে মঙ্গলরা এই এলাকায় আধিপত্য বিস্তার করেছিল।

তালেবান আফগানিস্তান দখলের পরই উদ্বেগ বাড়ছে হাজারা সম্প্রদায়ের মানুষের মধ্যে। দেশের মহিলা জেলা শাসকদের মধ্যে একজন সালিমা মাজারি বর্তমানে তালেবানদের হেফাজতে রয়েছে। মূর্তি ভাঙার পর তালেবানদের উদ্দেশ্য নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। অনেকেই বলছে, তারা যা বলছে তা করবে?

সূত্র: এএনআই।