সৌদি হামলায় চারদিনে নিহত এক হাজার!

গত চার দিনে ইয়েমেনের রাজধানী সানা ও আশপাশের প্রদেশে অন্তত এক হাজার হাউথি যোদ্ধা নিহত হয়েছেন। পাল্টা হামলায় সৌদি জোটের অন্তত ৫০ সেনা নিহত হন। ইয়েমেনের রাজধানী সানার অদূরে একটি তেল ক্ষেত্রের নিয়ন্ত্রণকে কেন্দ্র করে গত এক সপ্তাহ যাবত সংঘর্ষ চলে আসছে।

শুক্রবার (২১ আগস্ট) ইয়েমেরেন স্থানীয় গণমাধ্যম ও সৌদি সমর্থিত সরকারের এক মুখপাত্রের বরাদ দিয়ে এসব তথ্য ‍জানায় গণমাধ্যম।

খবরে বলা হয়, দেশটির স্থানীয় গণমাধ্যমে উল্লেখ করা হয়, কয়েকশ যোদ্ধার লাশ পড়ে রেয়েছে রাজধানী সানায়। একই পরিস্থিতি দেখা গেছে দেশটির মধ্য প্রদেশ মারিবে।

ইরান সমর্থিত হাউথিরা মারিব ও হেলেরন প্রদেশে তেল ক্ষেত্রের নিয়ন্ত্রণে নিতে হামলা শুরু করে গত সপ্তাহে। এতে সরকারি সৌদি সমর্থিত সরকারি বাহিনীর সঙ্গে তুমুল যুদ্ধ বেধে যায়। সংঘর্ষের এক সময় সরকারি বাহিনীর সঙ্গে যোগ দেয় সৌদি জোটের সেনারাও। শুরু হয় অতর্কিত হামলা।

দেশটির সরকারি বাহিনীর একজন মুখপাত্র গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আমরা ৯৬৬ জনের মরদেহ গনণা করতে পেরেছি। সেখানে হাউথিদের একজন উচ্চ পদস্থ জ্যেষ্ঠ সেনা সদস্য রয়েছেন।

এদের সবাই গত ৪ দিনে নিহত হয়েছে। তাদের মরদেহ শুক্রবারও বিভিন্ন স্থানে পড়ে থাকতে দেখা গেছে। সরকারি বাহিনীর অর্ধশতাধিক সেনা নিহত হয়েছেন বলেও স্বীকার করেন ওই মুখপাত্র। জানায় গণমাধ্যম ।

এর আগে বুধবার অতর্কিত হামলার পর ৩৫ হাউথি সেনা সরকারি বাহিনীর কাছে আত্মসমর্পণ করতে বাধ্য হয়। বলে জানানো হয়।দেশটির উত্তরাঞ্চলিয় জাওয়াফ প্রদেশে সরকারি বাহিনীর হামলায় হাউথিদের ওই উচ্চপদস্থ সেনা কর্মকর্তা নিহত হন।

ওই কর্মকর্তা শুক্রবার এ বিবৃতি দেয়ার পর সৌদি আরবে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় হাউথি যোদ্ধারা। একই সঙ্গে একটি বিস্ফোরক ভর্তি ড্রোন দিয়ে হামলার চেষ্টা করে। কিন্তু সৌদি জোট হাউথিদের ওই হামলা সফলভাবে প্রতিহত করেছে বলে দাবি করে।