সিফাতের মুক্তির মানববন্ধন পণ্ড করতে গিয়ে কনস্টেবলকেই চড় মেরে বসলেন ওসি!

সাবেক মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান নিহতের ঘটনার সময় তার সাথে থাকা গ্রেফতারকৃত শিক্ষার্থী শাহেদুল ইসলাম সিফাতের মুক্তির দাবিতে বরগুনায় আয়োজিত মানববন্ধনে লাঠিচার্জ করেছে পুলিশ। মানববন্ধন পণ্ড করতে গিয়ে একপর্যায়ে কনস্টেবলকেই চড় দিয়ে বসলেন বামনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইলিয়াস হোসেন।

মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারীদের গালিগালাজ করে লাঠিচার্জের নির্দেশ দেন তিনি। এরপর পুলিশ লাঠিচার্জ শুরু করে। এতে মুহূর্তেই মানববন্ধন পণ্ড হয়ে যায়। ঘটনার ভিডিও ফুটেজে দেখা গেছে, ওসি নিজেও লাঠিচার্জ করেন।

শনিবার দুপুরে সিফাতের নিজ এলাকা বামনায় এ কর্মসূচি পালনের প্রস্তুতি নেয় তার সহপাঠি, বন্ধু ও শুভাকাঙ্ক্ষীরা। তাদের অভিযোগ, হঠাৎ পুলিশ এসে তাদের কর্মসূচি বন্ধ করতে বলে। এক পর্যায়ে লাঠিপেটা করে মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ৮ জন।

মানববন্ধন ছত্রভঙ্গ করতে নিজেই লাঠিচার্জ করেন ওসি। পুলিশের দাবি, আগে থেকে অনুমতি না নেয়ায় তারা কর্মসূচি পালন করতে দেয়নি। তাদের বক্তব্য, একদল দুষ্কৃতকারী রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে মানববন্ধন করছে বলে আমি জানতে পারি। সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হবে বলে মানববন্ধন বন্ধ করে দিয়েছি।তবে আয়োজনকারীদের দাবি, এর আগে কয়েকবার অনুমতি চেয়ে না পেয়ে আজ তারা কর্মসূচি পালন করেন।