সিনেমা হলের জন্য সরকারের বরাদ্দ ৭০০ কোটি টাকা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় সিনেমা হলের জন্য বিশেষ ঋণ তহবিল গঠনের উদ্যোগের খবরে হল মালিকরা, প্রযোজকরা, পরিচালকরা বলছেন, এর মধ্য দিয়ে দেশের চলচ্চিত্রের সুদিনের দরজা খুলবে।

গত ২৫ আগস্ট একনেকে সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সিনেমা হল চালু করতে ঋণ তহবিলের আগ্রহের কথা জানানোর দুদিন পর তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদের সঙ্গে বিস্তারিত আলোচনা করেন বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক ও পরিবেশক সমিতি, চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতি ও প্রদর্শক সমিতির নেতারা।

তারা জানান, দেশের বন্ধ হয়ে যাওয়া হলের সংস্কার ও নতুন সিনেমা হল গড়তে স্বল্প সুদে প্রায় ৭০০ কোটি টাকা ঋণ দেয়ার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার।

সরকারের এমন সিদ্ধান্তকে সামগ্রিকভাবে বাংলা চলচ্চিত্রের জন্য ইতিবাচক বলে মন্তব্য করেছেন সিনেমা সংশ্লিষ্ট নেতারা।

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক ও পরিবেশক সমিতির সভাপতি খোরশেদ আলম খসরু বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী যেহেতু নির্দেশনা দিয়েছেন এটা বাস্তবায়ন হওয়া তাই এখন সময়ের ব্যাপার শুধু মনে হচ্ছে। এর মধ্য দিয়ে চলচ্চিত্রের সুদিন ফিরবে।’

খসরু বলেন, তথ্যমন্ত্রী আমাদের ধারণা দিয়েছেন, প্রায় ৭০০ কোটি টাকার মতো দেওয়া হবে হল সংস্কারের জন্য। এটা স্বল্পসুদে দীর্ঘমেয়াদী ঋণ।

হল মালিক সমিতির সভাপতি কাজী শোয়েব রশিদ বলছেন, ‘করোনার কারণে দীর্ঘদিন থেকে সিনেমা হল বন্ধ রয়েছে। এরকম অনেকেই আমাদের বলছিলেন যে, ঋণ না দিয়ে সরকার যদি এই বরাদ্দকৃত অর্থ অনুদান হিসেবে দিতেন, তাহলে বেশি উপকৃত হতেন। ৪ শতাংশ সুদ দেয়া অনেকের পরিশোধ করা কঠিন হয়ে যাবে।’

এদিকে সিনেমা হল খোলার বিষয়ে বৈঠক করার জন্য ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদের সঙ্গে বসবে চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট সংগঠনগুলোর প্রতিনিধিরা।