শুভেন্দু অধিকারীকে গ্রেফতারির দাবি জানাল তৃণমূল

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের ক্ষমতাসীন তৃণমূল কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক ও মুখপাত্র কুণাল ঘোষ দুর্নীতিতে অভিযুক্ত ভুয়ো অর্থলগ্নি সংস্থা ‘সারদা’ কর্তা সুদীপ্ত সেনের চিঠি প্রকাশ্যে এনে বিধানসভার বিরোধী দলনেতা ও বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারীর গ্রেফতারির দাবি জানিয়েছেন।

আজ (শনিবার) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটার বার্তায় কুণাল ঘোষ বলেন, আদালত থেকে পাওয়া সুদীপ্ত সেনের চিঠির প্রতিলিপির ভিত্তিতে তিনি অভিযোগ তুলেছেন এবং শুভেন্দু অধিকারীর গ্রেফতারির দাবি জানাচ্ছেন।

তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষ এ সংক্রান্ত চিঠি প্রকাশ করে বলেন, ‘সারদা’র মালিক সুদীপ্ত সেনের বক্তব্য : তাঁর অভিযোগ, শুভেন্দু এবং তাঁর সহযোগী রাখাল (বর্তমানে জেল হেফাজতে) বিপুল টাকা নিয়েছিলেন। পুলিশ, ইডি এবং (কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা) সিবিআই-এর উচিত রাখালকে জেরা করা। তদন্তের স্বার্থে প্রভাবশালী শুভেন্দুকে অবশ্যই গ্রেফতার করতে হবে।

গত ডিসেম্বরে প্রেসিডেন্সি জেল থেকে ভুয়ো অর্থলগ্নি সংস্থা ‘সারদা’ কর্তা সুদীপ্ত সেন ওই চিঠি লিখেছিলেন বলে দাবি। রাষ্ট্রপতি, মুখ্যমন্ত্রী এবং কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা সিবিআইয়ের ডিরেক্টরের উদ্দেশে লেখা ওই চিঠিতে সুদীপ্ত সেন বিজেপি, তৃণমূল, কংগ্রেস এবং সিপিএমের শীর্ষস্তরের কিছু নেতার বিরুদ্ধে তাঁর কাছ থেকে টাকা নেওয়ার অভিযোগ তুলেছিলেন। তৃণমূল নেতা কুণাল ঘোষের দাবি, শুভেন্দু এবং তাঁর ঘনিষ্ঠ রাখাল বেরা বহু টাকা নিয়েছেন সুদীপ্তের কাছ থেকে।

এদিকে, তৃণমূলের পক্ষ থেকে ইতোমধ্যেই অভিযোগ তোলা হয়েছে, গত বৃহস্পতিবার দিল্লিতে সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতার বাসভবনে গিয়ে তাঁর সঙ্গে বৈঠক করেছেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। তুষার মেহতা সারদা দুর্নীতি মামলায় সিবিআই-এর কৌঁসুলী এবং শুভেন্দু অধিকারী অন্যতম একজন অভিযুক্ত। তুষার মেহতা অবশ্য শুভেন্দুর সঙ্গে তাঁর কোনও বৈঠক হয়নি বলে সাফাই দিয়েছেন। যদিও তৃণমূলের পক্ষ থেকে তাঁর অপসারণ দাবি করা হয়েছে।

সূত্রঃ পার্সটুডে