শাকিব আমার সামনে অপু বিশ্বাসকে লাথি মারে: জায়েদ খান

চলচ্চিত্রে সংকটের অভাব নেই। তার উপর করোনার কারণে বন্ধ হয়ে আছে শুটিং। মুক্তি পাচ্ছে না সিনেমা। কাজহীন হয়ে অসহায় দিনযাপন করছেন শত শত শিল্পী ও কলাকুশলীরা। তার সঙ্গে যোগ হয়েছে এফডিসিতে বহুতল ভবন নির্মাণের বিতর্ক।

তবে সবকিছুকে ছাপিয়ে চলচ্চিত্রাঙ্গন এখন আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছে সেখানকার মানুষদের মধ্যে চলমান বিরোধ ও দ্বন্দ্ব নিয়ে। বেশ কিছু অভিযোগ এনে শিল্পী সমিতি ব্যতীত চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট ১৮টি সংগঠন থেকে বয়কট করা হয়েছে শিল্পীদের সভাপতি মিশা সওদাগর ও সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খানকে। তাদের দাবি এই দুই নেতার পদত্যাগ করতেই হবে। নাহলে শিল্পী সমিতির সদস্য শিল্পীদের এড়িয়ে চলবে ১৮ সংগঠন।

তবে এর মাঝেই যেন আবারো বোমা ফাটালেন জায়েদ খান। সম্প্রতি একটি ফেসবুক লাইভ অনুষ্ঠানে এসে শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসকে নিয়ে অবাক করা তথ্য দিলেন জায়েদ।

অনুষ্ঠানে জায়েদ খান বলেন, ‘আমি একদিন রাত সাড়ে দশটায় গুলশানে অপু বিশ্বাসের বাসার নিচে তার বোনসহ কথা বলছিলাম। সেখানে আমি একটা সিনেমায় কাজ করার বিষয়ে কথা বলতে গিয়েছিলাম।

অপু তখন একজন স্টার তার সঙ্গে কাজ করার ইচ্ছা তো থাকতেই পারে। আর তখন আমরা জানতামও না যে সে (শাকিব খান) তার স্ত্রী ছিলো। বিষয়টি সেসময় গোপন ছিল। আমরা কথা বলছিলাম তখনই শাকিব ভাই চলে আসেন, এসেই অপু বিশ্বাসকে মারতে শুরু করেছে। আমার সামনে অপুকে লাথি মারলো। তখন আমি শাকিব ভাইকে বললাম ভাই, এটা কী করলেন? আপনি একজন স্টার মানুষ।’

তিনি আরো বলেন, ‘অপুকে মারার দৃশ্য অনেকেই দেখেছিলেন। বাসার দারোয়ানরা দেখছিলো। তখন আমি ভাইকে সাইডে নিয়ে গিয়ে বললাম ভাই, আপনি একজন স্টার মানুষ; আপনি এসব করলে, দারোয়ান আছে, মানুষজন দেখলে কী বলবে?’

তখন শাকিব ভাই বললো, ‘না না আমি আর ওর সাথে নাই। এই বিষয়টি নিয়ে তিনি বিভিন্ন জায়গায় বলেছেন, আমি অপুকে জায়েদের সঙ্গে হাতেনাতে ধরেছি! এই কথাগুলো আমার কাছে খুব খারাপ লাগছে। তিনি একজন সিনিয়র শিল্পী; তিনি কিভাবে এটা বলতে পারলেন?’

এদিকে চলচ্চিত্রের ১৮ সংগঠন শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদককে জায়েদ খানকে বয়কট করেছেন। অন্যদিকে চলচ্চিত্র থেকে বাদ দেওয়া ১৮৪ জন শিল্পীকে বাদ দেওয়ার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছেন।