শত্রুর জৈব হামলা শুরু ভারতে!

ভারতের বিভিন্ন এলাকায় অর্ডার না করলেও বাড়ি বাড়ি পৌঁছে যাচ্ছে বীজ ভরতি রহস্যময় পার্সেল!। আর এই বীজেই লুকিয়ে থাকতে পারে ভারতের জন্য ভয়ানক বিপদ। নষ্ট হয়ে যেতে পারে জীব বৈচিত্র্য।

করোনার থেকেও মারাত্মক কোনও জীবাণু ছড়িয়ে পড়তে পারে এই ফসলী বীজের মাধ্যমে। তাই তা নিয়ে আগেভাগেই দেশবাসীকে সতর্ক করল ভারতের কেন্দ্র সরকার। রহস্যময় বিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন রাজ্যকে চিঠি দিয়েছে সেদেশের কেন্দ্রীয় কৃষি মন্ত্রণালয়।

জানা যায়, কিছুদিন ধরেই ই-কমার্স সাইট থেকে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে পৌঁছে যাচ্ছে রহস্যময় পার্সেল। অথচ প্রাপক তা অর্ডারই করেননি। আর পার্সেল খুললে দেখা যাচ্ছে, তার মধ্যে রয়েছে একাধিক বীজ। কোনওটা ফুলের, কোনওটা ফলের, আবার কোনওটা আবার চেনাজানা সরষের বীজ।

কিন্তু কে এমন পার্সেল পাঠাচ্ছে? তার উদ্দেশ্যই বা কী? সংশ্লিষ্ট মহলের আশঙ্কা জৈব অস্ত্রে শান দিচ্ছে শত্রুরা। ওই পার্সেল আসলে কোনও জৈব অস্ত্র! তাই কোনও ঝুঁকি নিতে রাজি নয় ভারতের কেন্দ্র সরকার। ইতিমধ্যে কেন্দ্রের পক্ষ থেকে বিভিন্ন রাজ্য সরকার এবং শিল্প ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানগুলিকে সন্দেহজনক বা অবৈধ কোনও পার্সেল সম্পর্কে সতর্ক থাকার নির্দেশ দিয়েছে।

তবে এখনই একে জৈব অস্ত্র বলতে নারাজ কৃষি বিশেষজ্ঞরা। যেমন ভারতের বীজ শিল্প ফেডারেশনের ডিরেক্টর রাম কৌদিন্য বলেন, “বীজের মাধ্যমে অন্যান্য গাছপালার মধ্যে রোগ ছড়াতেই পারে। তবে একে বায়ো টেরিরিজম বা জৈব সন্ত্রাস বলা যাবে না। এই জাতীয় পার্সেলের মাধ্যমে আসা বীজগুলি থেকে এমন আগাছা জন্মাতে পারে, যা ভারতের স্থানীয় শস্য এবং গাছপালার জন্য বিপজ্জনক হতে পারে।