লেবানন বিস্ফোরণ: ঘর হারিয়ে পথে ৩ লাখ মানুষ, নেই খাবার

ভয়াবহ বিস্ফোরণের পর নানা অনিশ্চয়তায় দ্বিতীয় রাতযাপন করলেন লেবাননের বৈরুতবাসী। শহরজুড়ে এখন শুধুই ধ্বংসযজ্ঞ। সহায় সম্বল হারিয়ে রাস্তায় নেমেছেন প্রায় ৩ লাখ মানুষ। করোনা মহামারীর মধ্যে এমন সঙ্কটে দিশেহারা স্থানীয়রা।

জীবনের সবচেয়ে আনন্দের দিনটি হঠাৎ এভাবেই হয়ে যায় লণ্ডভণ্ড। বিয়ের বাজনা নয়, বরং বিকট এক বিস্ফোরণের শব্দ দুঃস্বপ্নের মতো কানে বাজছে সদ্য বিবাহিত এই দম্পতির মনে। লেবাননের বৈরুতে ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনায় প্রাণে বেঁচে গেলেও উড়ে গেছে তাদের সাজানো গোছানো নতুন সংসার।

নববধূ বলেন, চোখের সামনে সারা শহরটা এক মুহূর্তেই ধ্বংস হয়ে গেলো। যে বাড়িটা বিয়ের পর থাকবো বলে সাজানো হয়েছিলো, সেটাও ধসে গেছে। বেঁচে আছি, এখন এটাই অনেক।

তার মতোই এখন বাস্তুচ্যুত বৈরুতে বসবাসরত আরও প্রায় তিন লাখ মানুষ। শুধু মাথার ওপর ছাদ নেই, নেই ক্ষুধা নিবারণের খাবারও। করোনা মহামারীর মধ্যেই ভয়াবহ এই ঘটনায় দারিদ্রসীমার নিচে নেমে এসেছে দেশটির মোট জনসংখ্যার অর্ধেক মানুষ। ইতোমধ্যেই বিভিন্ন দেশ থেকে ত্রাণ আর খাদ্য সহায়তা আসতে শুরু করলেও তা যথেষ্ট নয়।

একজন বলেন, জানি না কোথায় যাবো। কোথাও কোন মাথা গোঁজার জায়গা নেই। এভাবে পথে থাকতে হবে কখনও ভাবতে পারিনি।

সংকটময় এই পরিস্থিতি মোকাবিলায় বিশ্ব সম্প্রদায়কে আরও সহায়তা পাঠানোর আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ, রেড ক্রসসহ বেশ কিছু আন্তর্জাতিক সংস্থা।