লেবাননকে সংকটে ফেলা থেকে বিরত থাকুন

লেবাননের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হিজবুল্লাহর মহাসচিব সাইয়্যেদ হাসান নাসরুল্লাহ বলেছেন, তার সংগঠনের বিরুদ্ধে মনস্তাত্ত্বিক যুদ্ধ মানেই হচ্ছে দেশকে সংকটের মধ্যে ফেলা।

গতকাল বুধবার সাইয়্যেদ হাসান নাসরুল্লাহ লেবাননের কোন কোন বাংলা মাধ্যমের নেতিবাচক প্রচারণার দিকে ইঙ্গিত করে একথা বলেন।এছাড়া, লেবাননের ম্যারোনাইট খ্রিস্টান পাদ্রী বেচারা বুত্রস আর-রাহি ইহুদিবাদী ইসরাইল অভিমুখে হিজবুল্লাহর রকেট হামলার সমালোচনা করেছেন।

হাসান নাসরুল্লাহ সাম্প্রদায়িক রাজনৈতিক ও গোষ্ঠীগত প্রতিক্রিয়ায় বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বক্তব্য রাখেন। তিনি বলেন, “আজকের দিনে শত্রুদের সবচেয়ে বিপজ্জনক ও গুরুত্বপূর্ণ অস্ত্র হচ্ছে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে প্রপাগান্ডা চালানো যা হুমকি এবং সুযোগ হিসেবে দেখা দিতে পারে। আমাদেরকে অবশ্যই হুমকিকে সুযোগে পরিণত করে তাকে কাজে লাগাতে হবে।”

সাইয়্যেদ হাসান নাসরুল্লাহ তার সমর্থকদেরকে মনস্তাত্ত্বিক যুদ্ধ নিজেদের দুর্ভেদ্য করে তোলার আহ্বান জানান। পাশাপাশি মতভিন্নতার কারণে অন্যদেরকে দোষারোপ করা কিংবা বিনা কারণে কোনো ব্যক্তিকে অপমান করা থেকে সম্পূর্ণভাবে বিরত থাকার কথা বলেন।

দক্ষিণ লেবাননের ইহুদিবাদী ইসরাইলের বিমান হামলার পর দুইদিন পর গত শুক্রবার হিজবুল্লাহ যোদ্ধারা অধিকৃত সেবা ফার্ম এলাকায় ইসরাইলি সামরিক অবস্থানের আশপাশে অন্তত বিশটি রকেট ছোঁড়ে। এর দুই দিন পর ম্যারোনাইট খ্রিস্টান পাদ্রী আর-রাহি দক্ষিণ লেবাননের নিয়ন্ত্রণ নেয়ার জন্য লেবাননের সামরিক বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানান।

তিনি দক্ষিণ লেবানন থেকে ইসরাইল অভিমুখে রকেট ছোঁড়া বন্ধ করার জন্য সামরিক বাহিনীকে পদক্ষেপ নিতে বলেন। পাদ্রী আর-রাহি দাবি করেন, এটি ইসরাইলের নিরাপত্তা জন্য নয় বরং লেবাননের নিরাপত্তার জন্য প্রয়োজন।

সূত্রঃ পার্সটুডে