রাশিয়া করোনার টিকার প্রযুক্তি স্থানান্তরে প্রস্তুত: পুতিন

রাশিয়া করেনার টিকার প্রযুক্তি স্থানান্তরে প্রস্তুত রয়েছে বলে জানিয়েছেন সেদেশের প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। তিনি বলেছেন, বিশ্বে রাশিয়াই একমাত্র দেশ, যে করোনার টিকার প্রযুক্তি স্থানান্তর ও বিদেশে উৎপাদন প্রসারিত করতে প্রস্তুত রয়েছে।

বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থার সম্পাদকদের সঙ্গে ভার্চ্যুয়ালি আলোচনাকালে গতকাল (শনিবার) পুতিন এসব মন্তব্য করেন। পুতিন জানান, রাশিয়া বর্তমানে বিশ্বের ৬৬টি দেশে ‘স্পুতনিক-ভি’ টিকা বিক্রি করছে। একে তিনি রাশিয়ার জন্য একটা বড় বাজার হিসেবে উল্লেখ করেন।

‘স্পুতনিক-ভি’ টিকার কার্যকারিতা নিয়ে সব অভিযোগ নাকচ করেন পুতিন। রুশ প্রেসিডেন্ট বলেন, তিনি প্রায় নিশ্চিত যে বাণিজ্যিক কারণে এসব অভিযোগ করা হচ্ছে। কিন্তু রাশিয়া মানবিক দিকটি অনুসরণ করছে। ইউরোপে রাশিয়ার টিকার নিবন্ধন পেতে বিলম্বের মূলে প্রতিযোগিতা ও বাণিজ্যিক স্বার্থ রয়েছে বলে মন্তব্য করেন পুতিন।

করোনাভাইরাস ছড়ানোর জন্য চীনকে দোষারোপের সমালোচনা করেন পুতিন। তিনি বলেন, এ বিষয় নিয়ে অনেক কথা হয়েছে। এই সংকটকে রাজনৈতিকীকরণ করা উচিত নয়। আমেরিকার বর্তমান ও সাবেক প্রেসিডেন্ট করোনাভাইরাস ইস্যুতে চীনকে নানা উপায়ে হেনস্থা করার চেষ্টা করছে। এতে চীনের সঙ্গে আমেরিকার সম্পর্কে টানাপোড়েন আরও বাড়ছে।

বিশ্বে রাষ্ট্রীয় অনুমোদন পাওয়া প্রথম করোনার টিকা হচ্ছে রাশিয়ার ‘স্পুতনিক-ভি’। তবে এই টিকার কার্যকারিতা নিয়ে প্রথমে ইউরোপ ও আমেরিকা নানা প্রশ্ন তুলেছিল। রাশিয়া বলছে, এ ধরণের অভিযোগ রাজনৈতিক ও ব্যবসায়িক স্বার্থের কারণে।

সূত্রঃ পার্সটুডে