রামেক হাসপাতালে করোনা ও উপসর্গে আরও ১৯ জনের মৃত্যু

গত ২৪ ঘণ্টায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ১৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত চিকিৎসাধীন অবস্থায় তারা মারা যান। এদের মধ্যে ৪ জন পজিটিভ, ১৫ জন উপসর্গে মারা যান। রামেক হাসপাতালের পরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এ নিয়ে জুলাই মাসের ৬ দিনে রামেক হাসপাতালে করোনা ও উপসর্গে ১০১ জনের মৃত্যু হলো। আর জুন মাসে মৃত্যু হয়েছে ৩৫৪ জনের।

রামেক পরিচালক জানান, নতুন মৃতদের ১০ জন রাজশাহীর (পজিটিভ ১, উপসর্গে ৯), চাঁপাইনবাবগঞ্জের ১ জন (উপসর্গে), নাটোরের ২ জন (পজিটিভ ১, উপসর্গে ১), নওগাঁয় ২ জন (পজিটিভ ১, উপসর্গে ১) পাবনায় ১ (পজিটিভ), কুষ্টিয়ার ১ জন (উপসর্গে), চুয়াডাঙ্গায় ১ (উপসর্গে) ও জয়পুরহাটে ১ জন (উপসর্গে)। মৃতদের মধ্যে পুরুষ ১৩ ও নারী ৬ জন। মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় রামেক হাসপাতালে নতুন ভর্তি হয়েছেন ৭৬ জন। এদের মধ্যে রাজশাহীর ৪৫, চাঁপাইনবাবগঞ্জের ৭, নওগাঁর ৪, নাটোরের ৫, পাবনার ৯, চুয়াডাঙ্গার ২, বগুড়ার ২ ও লালমনিরহাটের ২ জন রয়েছেন। একই সময়ে সুস্থ হয়ে রামেক হাসপাতাল ছেড়েছেন ৭০ জন।

তিনি বলেন, আজ মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত এ হাসপাতালের ৪০৫ বেডের বিপরীতে করোনা ও উপসর্গের রোগী ভর্তি রয়েছেন ৪৮৯ জন। গতকাল সোমবার ভর্তি ছিলেন ৪৯৫ জন। অতিরিক্ত বেডের ব্যবস্থা করে অতিরিক্ত রোগীদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। ভর্তি রোগীদের মধ্যে রাজশাহীর ৩০৫, চাঁপাইনবাবগঞ্জের ৪৩, নওগাঁর ৪৪, নাটোরের ৪৬, পাবনার ৩৫, কুষ্টিয়ার ৯, চুয়াডাঙ্গা ১, জয়পুরহাট ১, সিরাজগঞ্জ ২, বগুড়া ৩ ও নালমনিরহাটের ২ জন রয়েছেন।

রামেক পরিচালক জানান, সোমবার রাজশাহীর দুই ল্যাবে দুই জেলার ৭১২ জনের নমুনা পরীক্ষায় করোনা পজিটিভ হয়েছে ২০১ জনের। এদিন রাতে প্রকাশিত দু’টি পিসিআর ল্যাবের নমুনার ফলাফলে দেখা যায়, রাজশাহী শনাক্তের হার ২৯ দশমিক ০৩ শতাংশ, চাঁপাইনবাবগঞ্জে শনাক্তের হার ১৮ দশমিক ৫২ শতাংশ।