রামেক করোনা ইউনিটে ২৪ ঘণ্টায় আরও ১৬ জনের মৃত্যু

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের করোনা ও উপসর্গে মৃত্যু উঠানামা করছে। এ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার সকাল থেকে শনিবার সকাল পর্যন্ত চিকিৎসাধীন অবস্থায় তারা মারা যান।

এদের মধ্যে করোনা পজিটিভ ৮ জন, করোনা পজিটিভ থেকে নেগেটিভ ২ জন এবং করোনার উপসর্গে ৬ জন মারা যান। রামেক হাসপাতালের পরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এ নিয়ে জুলাই মাসের ১৬ দিনে রামেক হাসপাতালে করোনা ও উপসর্গে ৩০৫ জনের মৃত্যু হলো। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি মারা যান ১৪ জুলাই ২৫ জন ও সবচেয়ে কম ৪ জুলাই ১২ জন। এর আগে গত জুন মাসে এ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে করোনা ও উপসর্গে মারা যান ৪০৫ জন।

রামেক পরিচালক জানান, নতুন মৃতদের রাজশাহীর ৯ (পজিটিভ ৪, উপসর্গে ৩, নেগেটিভ হওয়ার পর ২) জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ২ (উপসর্গ) জন, নাটোরের ১ (পজিটিভ ১) জন পাবনা ৩ (পজিটিভ) এবং কুষ্টিয়ার ১ (পজিটিভ) জন। নতুন মৃত ১৬ জনের মধ্যে ১৪ জন পুরুষ এবং ২ জন নারী। এদের মধ্যে ৬ জনের বয়স ৬১ বছরের ঊর্ধ্বে, ৪ জনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ বছর, ২ জনের বয়স ৪১ থেকে ৫০ বছর এবং ৪ জনের বয়স ৩১ থেকে ৪০ বছর।

তিনি বলেন, ‘আজ শনিবার সকাল পর্যন্ত এ হাসপাতালের ৪৫৪ বেডের বিপরীতে করোনা ও উপসর্গের রোগী ভর্তি রয়েছেন ৫২৭ জন। গতকাল শুক্রবার ভর্তি ছিলেন ৪৯৮ জন। এদের মধ্যে রাজশাহীর ২৭৫, চাঁপাইনবাবগঞ্জের ৩৩, নাটোরের ৮৫, নওগাঁর ৫২, পাবনার ৫৫, কুষ্টিয়ার ১৮, চুয়াডাঙ্গার ২ জন, জয়পুরহাটের ৩, সিরাজগঞ্জের ২ ও বগুড়ার ২ জন। আইসিইউতে ভর্তি আছেন ১৯ জন।

অতিরিক্ত বেডের ব্যবস্থা করে অতিরিক্ত রোগীদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। শনিবার সকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় রামেক হাসপাতালে নতুন ভর্তি হয়েছেন ৬৬ জন। এদের মধ্যে রাজশাহীর ৩০, চাঁপাইনবাবগঞ্জের ০, নাটোরের ২০, নওগাঁর ৭, পাবনার ৪, কুষ্টিয়ার ৪ ও চুয়াডাঙ্গার ১ জন। একই সময়ে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন ২৭ জন।

তিনি জানান, রামেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন ৫২৭ জনের মধ্যে ২৫৮ জনের করোনা পজিটিভ রয়েছে। আর উপসর্গ নিয়ে ভর্তি রয়েছেন ১৮৯ জন। এছাড়াও চিকিৎসা নিয়ে করোনামুক্ত হওয়ার পর ফুসফুসে ইনফেকশনসহ পরবর্তী শারীরিক জটিলতার কারণে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৮০ জন।

শুক্রবার রাজশাহী মেডিকেল কলেজ এবং হাসপাতালের পৃথক ল্যাবে দুই জেলার ৪৭০ জনের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। এর মধ্যে করোনা পজিটিভ এসেছে ১৫০ জনের। চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার ৬৯ জনের নমুনায় ২২ জনের পজিটিভ এসেছে। রাজশাহীর ৪০১ জনের নমুনায় ১২৮ জনের পজিটিভ এসেছে। রাজশাহীতে সংক্রমণের হার ৩১.৯২% এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৩১.৮৮%।