রামেক করোনা ইউনিটে একদিনে আরও ১৩ জনের মৃত্যু

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে আবারও মৃত্যু বেড়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় এ ইউনিটে করোনা ও উপসর্গে ১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে শুক্রবার সকাল পর্যন্ত চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয়।

এদের মধ্যে করোনা পজিটিভ ৫ জন, করোনা নেগেটিভ হওয়ার পরও শারীরিক জটিলতায় ১ জন এবং করোনার উপসর্গে ৭ জন মারা যান। রামেক হাসপাতালের পরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

রামেক পরিচালক জানান, মৃতদের মধ্যে রাজশাহীর ৮ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের ১ জন, নাটোরের ১ জন ও পাবনার ৩ জন। মৃতদের মধ্যে ৭ জন পুরুষ ও ৬ জন নারী। এদের মধ্যে ৭ জনের বয়স ৬১ বছরের ঊর্ধ্বে, ৪ জনের বয়স ৫১ বছরের ঊর্ধ্বে, ১ জনের বয়স ৪১ বছরের ঊর্ধ্বে ও ১ জনের বয়স ২১ বছরের ঊর্ধ্বে।

তিনি জানান, আজ শুক্রবার সকাল পর্যন্ত এ হাসপাতালের ৫১৩টি করোনা ডেডিকেটেড বেডের বিপরীতে করোনা ও উপসর্গের রোগী ভর্তি রয়েছেন ৩২৫ জন। এদিন সকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় নতুন ভর্তি হয়েছেন ৪০ জন। একই সময় সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন ৪৪ জন। বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত করোনা ইউনিটের আইসিইউতে রয়েছে ২০ জন।

ব্রিগেডিয়ার শামীম ইয়াজদানী জানান, শুক্রবার সকাল পর্যন্ত করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন রোগীদের মধ্যে ১৭৯ জনের করোনা পজিটিভ রয়েছে। করোনার উপসর্গ নিয়ে ভর্তি রয়েছেন ৮৭ জন; যাদের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছে। এছাড়া করোনামুক্ত হয়েও পরবর্তী স্বাস্থ্য জটিলতায় চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৫৯ জন।

রামেক হাসপাতাল পরিচালক জানান, বৃহস্পতিবার দুইটি ল্যাবে রাজশাহী জেলার ৩৩০ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৮৩ জনের করোনা পজিটিভ হয়েছে। যা আগের দিনের চেয়ে ৩ দশমিক ৪৮ শতাংশ কমে শনাক্তের হার দাঁড়িয়েছে ২৫ দশমিক ১৫ শতাংশ। আগের দিন বুধবার ছিল ২৮ দশমিক ৬৩ শতাংশ। এছাড়া গত মঙ্গলবার শনাক্তের হার ছিল ২৮ দশমিক ৮০ শতাংশ, সোমবার ২৩ দশমিকৎ ১০ শতাংশ, রবিবার ২৭ দশমিক ২৫ শতাংশ, শনিবার ৩৪ দশমিক ৬৩ শতাংশ, শুক্রবার ৩০ দশমিক ২১ শতাংশ।