যুক্তরাষ্ট্র ইরাক ত্যাগ করলে ওই এলাকা দখল করবে ইরান

যুক্তরাষ্ট্র ইরাক ত্যাগ করলে ইরান অঞ্চলটি দখল করে নেবে বলে মন্তব্য করেছেন ইসরাইলের গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের সাবেক প্রধান ইয়োসি কোহেন।

সম্প্রতি ‘ফ্রেন্ডস অব ইলহানে’ ইসরাইলের আমেরিকান বন্ধুদের কাছে সাবেক মোসাদ প্রধান এ আশঙ্কা প্রকাশ করেন। ইসরাইলকে যারা প্রচুর অর্থ দিয়ে সহায়তা করে তাদের নিয়ে ‘ফ্রেন্ডস অব ইলহান’ গঠিত।

মোসাদের সাবেক প্রধানের আশঙ্কা, যুক্তরাষ্ট্র ইরানের কাছে নরম হচ্ছে। ইরানের সঙ্গে আমেরিকা ২০১৫ সালের পরমাণু চুক্তিতে ফিরবে আশঙ্কা করেই এ মন্তব্য করেছেন তিনি। এছাড়া, ইরাকের মার্কিন ঘাঁটি থেকে সৈন্যসংখ্যা কমিয়ে আনা নিয়েও সতর্ক বার্তা দিয়েছেন ইয়োসি কোহেন।

ইসরাইলে যুক্তরাষ্ট্রের দাতাদের সঙ্গে আলোচনায় ইসরাইলের ভয়ংকর গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের সাবেক প্রধান বলেন, আমরা কি ইরানকে সহজে ছেড়ে দেব? আমরা কি তাদের সন্ত্রাসী কার্যক্রম চালিয়ে যেতে দেব, আমরা কি দূতাবাসগুলো ধ্বংস হতে দেব?

সর্বশেষ হামাসের সঙ্গে ইসরাইলের যুদ্ধে ইরান ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ আন্দোলনকে উন্নত অস্ত্র সরবরাহ করেছে মন্তব্য করে ইয়োসি কোহেন বলেন, যারাই ইসরাইলের বিপক্ষে তাদেরকেই ইরান সমর্থন দেয়।

ইসরাইলের অভ্যন্তরীণ ফ্রন্টে নতুন ধরনের বিপদের সম্মুখীন উল্লেখ করে মোসাদ প্রধান বলেন, লেবাননের হিযবুল্লাহ এবং ফিলিস্তিনের হামাসকে ইরান অত্যাধুনিক (অ্যাডভ্যান্সড) এবং দামি অস্ত্র সরবরাহ করছে। অতীতে এসব সংগঠন এমন অস্ত্র ব্যবহার করেনি।