মৃত নারীও ভিজিডির চাল উত্তোলন করছেন!

হবিগঞ্জে মৃত নারীর নামেও ভিজিডির চাল উত্তোলন করা হচ্ছে। ৮ মাস আগে মারা যাওয়া নারীর নামে জুন মাসেও চাল উত্তোলন করা হয়েছে। এমন ঘটনা ঘটেছে সদর উপজেলার রাজিউড়া ইউনিয়নে। এ বিষয়ে স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক বরাবর একটি লিখিত অভিযোগও দেয়া হয়েছে।

এতে উল্লেখ করা হয়, রাজিউড়া ইউনিয়নের শংকরপাশা গ্রামের রহিমা খাতুন আট মাস আগে মারা গেছেন। তবে তার নামে ভিজিডি কার্ড এখনো চলমান রয়েছে। জীবিত থাকতে একবারের জন্যেও তিনি চাল পাননি। বরাদ্দকৃত চাল তার নামে উঠছে ১৫ মাস ধরেই। অথচ কিছুই জানে না তার পরিবার।

মৃত রহিমা খাতুনের ছেলে জাহাঙ্গীর মিয়া জানান, তার মা জীবিত থাকতে ১৫ মাস আগে ভিজিডি কার্ড করে দেয়ার কথা বলে এনআইডি কার্ডের ফটোকপি ও ছবি নিয়েছিলেন ইউপি চেয়ারম্যান এনামুল হক আহমেদ শেখ কামাল। মাসে ৩০ কেজি চাল পাওয়ার আশায় তখন এসব দিয়েছিলেন। সঙ্গে ৩ হাজার টাকাও দেয়া হয়। কিন্তু এখন কার্ড পাওয়া তো দূরের কথা ফেরত পায়নি ৩ হাজার টাকাও।

ভিজিডি কার্ডের তথ্যে দেখা গেছে, গত ৮ জুন মলাই চানের স্ত্রী মৃত রহিমা খাতুনের নামে সর্বশেষ ভিজিডির ৩০ কেজি চাল উত্তোলন করা হয়েছে।

রাজিউড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এনামুল হক আহমেদ শেখ কামাল জানান, সামনে নির্বাচন আসছে। তাই এখন একটি মহল তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে। এ ধরনের কোনো ঘটনা ঘটেনি। এটি সম্পূর্ণ মিথ্যা।

তিনি বলেন, কার্ড ইস্যু করেন মেম্বাররা। তারাই এটি বণ্টনও করেন। এখানে চেয়ারম্যানের কিছুই করার নেই। মেম্বাররাই বলতে পারবেন এটি কে বা কারা উত্তোলন করেন।

এ ব্যাপারে সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শাখাওয়াত হোসেন রুবেল জানান, আমরা চেয়ারম্যান শেখ কামালের বিরুদ্ধে লিখিত একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্তসাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।