মুসলিমবিদ্বেষ ছড়ানোয় বিজেপি নেতাকে ব্যান করল ফেসবুক

সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষমূলক বক্তব্য প্রচারের দায়ে ভারতের তেলেঙ্গানার বিজেপি বিধায়ক টি রাজা সিংয়ের অ্যাকাউন্ট বন্ধ করেছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।

বৃহস্পতিবার (৩ সেপ্টেম্বর) ফেসবুকের মুখপাত্র এক বিবৃতিতে জানায়, ‘ঘৃণা এবং উসকানিমূলক পোস্ট আমাদের নীতির পরিপন্থী। আমরা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির পোস্টগুলো মূল্যায়ন করে দেখেছি, সেগুলো আমাদের নীতি লঙ্ঘন করছে। তাই আমাদের প্ল্যাটফর্ম থেকে তার অ্যাকাউন্ট সরানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান শশী থারুরের তলব পেয়ে বুধবার (২ সেপ্টেম্বর) ফেসবুক ইন্ডিয়ার ম্যানেজিং ডিরেক্টর অজিত মোহন বৈঠকে হাজির হয়েছিলেন। যদিও ফেসবুক প্রধান মার্ক জাকারবার্গকে কেন্দ্রীয় তথ্য-প্রযুক্তিমন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদের পাঠানো একটি চিঠি ঘিরে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে বৈঠক।

রবিশঙ্করের চিঠির প্রসঙ্গ তুলে বিজেপি সদস্যেরা অভিযোগ তোলেন, কংগ্রেসসহ বিরোধীদের প্রতি পক্ষপাতদুষ্ট আচরণ করছে ফেসবুক। এমনকি ফেসবুকের নীতি এবং উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা নিয়োগ পদ্ধতি নিয়েও প্রশ্ন তোলেন তারা।

 

যদিও গত মাসে মার্কিন সংবাদপত্র প্রকাশিত খবরে ফেসবুকের বিরুদ্ধে সরাসরি বিজেপির প্রতি পক্ষপাতদুষ্ট আচরণের অভিযোগ তোলা হয়েছিল।

প্রতিবেদনে বলা হয় থেকে বিষয়টি নিয়ে ফেসবুকের কাছে ব্যাখ্যা চাওয়ার পরই তেলেঙ্গানার রাজ্যের বিজেপি এমপি টি রাজা সিংয়ের চরম মুসলিমবিদ্বেষী কিছু পোস্ট মুছে দেয়া হয়। তার আগে পোস্টগুলো দীর্ঘদিন থাকার পরও মোছা হয়নি।

ব্যবসায়িক ক্ষতির ভয়ে ভারতে ক্ষমতাসীন এমপি’র মুসলিমদের বিরুদ্ধে বিদ্বেষমূলক পোস্টের ব্যাপারে চুপ ছিল ফেসবুক? এমন প্রশ্ন উঠে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমটির বিরুদ্ধে।

মার্চ মাসে ভারতের ফেসবুক কর্মীরা সিদ্ধান্ত নেয় রাজা সিংয়ের পোস্টগুলো বিপজ্জনক যা তাদের কোম্পানির ঘৃণা ছড়ানো সম্পর্কিত নীতিমালার লঙ্ঘন।

কিন্তু ভারতে ফেসবুকের পাবলিক পলিসি বিভাগের প্রধান আঁখি দাস ওই বিজেপি এমপি এবং আরো অন্তত তিনজন হিন্দু জাতীয়তাবাদী রাজনীতিকের ক্ষেত্রে কোম্পানির নীতি প্রয়োগের বিরোধিতা করেন।

আঁখি দাস ফেসবুক কর্মীদের বলেন নরেন্দ্র মোদির দলের লোকজনের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নিলে ভারতে কোম্পানিটির ব্যবসা বিপদে পড়তে পারে।

আঁখির বোন রশ্মি দাস দিল্লির জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ে বিজেপি সমর্থিত এবিভিপির সভানেত্রী ছিলেন। সেই তথ্য সামনে আসায় পুরো বিষয়টি নতুন মাত্রা পেয়েছিল।

এমন পরিস্থিতিতে বৃহস্পতিবার হায়দরাবাদের ঘোসামহলের প্রভাবশালী বিজেপি বিধায়কের বিরুদ্ধে ফেসবুকের পদক্ষেপ তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করা হচ্ছে। যদিও গত মাসে প্রতিবেদন প্রকাশিত হওয়ার পরেই টি রাজা সিং দাবি করেছিলেন, তার কোনো অফিশিয়াল ফেসবুক অ্যাকাউন্ট নেই।

সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া।