মিয়ানমারে সেনাবাহিনীর আরও এক সোর্সকে গুলি করে হত্যা

মিয়ানমারে সেনাবাহিনীর আরও এক সোর্সকে গুলি করা হত্যা করা হয়েছে। বুধবার রাজধানীয় ইয়াঙ্গুনের হ্লিয়াং শহরে এই ঘটনা ঘটে।মিয়ানমার নাউয়ের খবরে বলা হয়, মিয়ানমারে জান্তা সমর্থকদের ওপর যে গোপন হত্যাকাণ্ড হচ্ছে এটি তার সর্বশেষ ঘটনা। গত ১ ফেব্রুয়ারি সেনা অভ্যুত্থান হওয়ার পর থেকে এখন পর্যন্ত সেনাবাহিনীর ৯ সোর্সকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে।

মিয়ানমারে স্থানীয় ওয়ার্ড প্রশাসকরা সেনাবাহিনীর সোর্স হিসেবে কাজ করায় প্রায়ই অভ্যুত্থানবিরোধী কিংবা সশস্ত্র গোষ্ঠীর সদস্যদের লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হচ্ছেন। স্থানীয়রা জানান, নিহত সোর্সের নাম কিয়াও আয়ে। তিনি একটি চা দোকানের মালিক। বাড়ি থেকে বের হয়ে দোকানে যাওয়ার পথে খুব কাছ থেকে তার বুকে গুলি করা হয়। তার দোকান ‘অতি জাতীয়তাবাদী (আল্ট্রা ন্যাশনালিস্ট) গোষ্ঠী ‘মা বা থা’র বৈঠক বসত।

ঘটনার বিষয়ে প্রত্যক্ষদর্শী একজন বলেন,আমরা বন্দুকের শব্দ শুনে বাইরে যাই, কিন্তু গিয়ে দেখি কেউ নেই। ঘটনার পরই ২০ জন সেনা ঘটনাস্থল ১৩ নম্বর ওয়ার্ডে আসে। লাশের ছবি তোলায় সেনা সদস্যরা তিন নারীসহ ৬ জনকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায়।

মিয়ানমারের সেনাবাহিনী ওই ওয়ার্ডে হ্লা উইন নামে একজনকে প্রশাসক নিয়োগ দেয়। গত মাসে তিনি আত্মগোপনে চলে গেলে বসতিটি প্রশাসকহীন হয়ে পড়ে। নিহত কিয়াও আয়ে সেনাবাহিনীর সোর্স হিসেবে পরিচিত। তিনি ওয়ার্ড প্রশাসক হ্লা উইনের সঙ্গে মিলে কাজ করতেন। তাদের দেওয়া তথ্যে অন্তত ২০ জন সামরিক অভ্যত্থানবিরোধীকে গ্রেফতার করে সেনাবাহিনী।

সূত্র: মিয়ানমার নাউ