মমতা ব্যানার্জির বাড়ির নিরাপত্তায় থাকা পুলিশ গুলিবিদ্ধ

হঠাৎ গুলির শব্দে চমকে ওঠেন সবাই। তার পর চৌকিতে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন সশস্ত্র পুলিশের কনস্টেবল দিনেশ কর্মকারকে।

প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি, গোটা মুখ রক্তে ভেসে যাচ্ছিল ওই পুলিশকর্মীর। দ্রুত তাকে উদ্ধার করে এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ওই পুলিশ সদস্যের অস্ত্রোপচার করা হয়েছে। গুলি লেগেছিল ওই পুলিশকর্মীর গালে। গুলি বের করা হয়েছে। এখন তার অবস্থা স্থিতিশীল।

তবে এখনও রক্তপাত হচ্ছে। রক্তপাত বন্ধ হলে তাকে হাসপাতালের প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগে স্থানান্তরিত করা হবে। কলকাতা পুলিশের কর্তারা গুলির বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে চাননি।

তবে পুলিশের বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা গেছে, দীনেশ কর্মকার ওই চৌকিতে কর্তব্যরত ছিলেন। বুধবার রাতে তিনি ডিউটিতে ছিলেন। বৃহস্পতিবার সকালে ডিউটি পরিবর্তনের সময়ে ঘটনাটি ঘটে।

প্রাথমিকভাবে পুলিশকর্তাদের একাংশের অনুমান, ডিউটি পরিবর্তনের সময়ে আগ্নেয়াস্ত্রের গুলির ম্যাগাজিন খুলে সেই আগ্নেয়াস্ত্র পরবর্তী সময় যে ডিউটিতে যোগ দেবেন তাকে দেয়ার নিয়ম আছে। ম্যাগাজিন খোলার সময় অসতর্ক অবস্থায় গুলি বের হয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে মনে করছেন তদন্তকারীরা।

তবে গোটা ঘটনা তদন্তের দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তারা সিসি ক্যামেরার ফুটেজ খতিয়ে দেখছেন। তবে ‘অ্যাক্সিডেন্টাল ফায়ার’ বা অসর্কতায় ঘটনাটি ঘটেছে বলেই ধারণা পুলিশকর্তাদের।