মনোহরদীতে জনতার হাতে ছিনতাইকারী আটক

নরসিংদীর মনোহরদীতে ব্যাংক গ্রাহকের কাছ থেকে টাকা ছিনতাই করে পালানোর সময় খোকন ফকির (৪৫) নামে ছিনতাইকারীচক্রের এক সদস্যকে আটক করেছে জনতা। পরে তাকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হয়।

আটককৃত খোকন ফকির মাদারীপুর জেলার শিবচর উপজেলার বাহেরতলা গ্রামের মৃত লাল মিয়া ফকিরের ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বুধবার সকাল ১১টার দিকে মনোহরদী পৌরসভার ৮ নং ওয়ার্ডের ভাড়াটিয়া গাজীপুর জেলার কাপাসিয়া উপজেলার বর্জাপুর গ্রামের আব্দুর রশিদের স্ত্রী মোসা: ফাতেমা বেগম সোনালী ব্যাংক মনোহরদী সদর শাখা থেকে ৬১ হাজার ২০০ টাকা উত্তোলন করেন।

উত্তোলনকৃত টাকা তিনি তার ব্যবহৃত ভ্যানিটি ব্যাগে করে বাসায় ফেরার সময় ব্যাংক থেকেই অনুসরণ করতে থাকা ছিনতাইকারী খোকন এবং তার অপর এক সহযোগী ফাতেমা বেগমের ব্যাগটি ছিনিয়ে নিয়ে মাইক্রোবাসে করে পালানোর চেষ্টা করে।

এ সময় ফাতেমার চিৎকারে আশপাশের জনগণ এবং ব্যাংকের নিরাপত্তাকর্মী ওই মাইক্রোবাসের পিছনে তাড়া করে। পরে ইব্রাহীম নামের এক মোটরসাইকেল আরোহী মনোহরদী পৌরসভার বাইপাস রোডে মাইক্রোবাসটি আটক করে।

এ সময় সাধারণ জনগণ ছিনতাইকরী খোকন ফকিরকে ধরে ফেললেও তার অপর সহযোগী পালিয়ে যায়। পরে জনগণ ছিনতাইকারী খোকনকে মনোহরদী থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করে।

সোনালী ব্যাংকের মনোহরদী শাখার ম্যানেজার আরিফ উদ্দিন আহম্মদ জানান, ইতিপূর্বেও এ ধরণের আরো ছিনতাইয়ের সংবাদ এসেছে। এখন থেকে ব্যাংকের নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরো জোরদার করা হবে।

ছিনতাইয়ের বিষয়ে মনোহরদী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আশরাফ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ বিষয়ে মনোহরদী থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।