মধ্যপ্রাচ্যে যুদ্ধের ষড়যন্ত্র ইসরাইল এবং পশ্চিমাদের অনুতপ্ত হতে হবে: ইরান

মধ্যপ্রাচ্যের যুদ্ধের দাবানল ছড়িয়ে দেয়ার ষড়যন্ত্র করার জন্য ইহুদিবাদী ইসরাইল এবং পশ্চিমা দেশগুলোকে অনুতপ্ত হতে হবে। এ কথা বলেছেন ফ্রান্সে নিযুক্ত ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের রাষ্ট্রদূত বাহরাম কাসেমি।

ওমান সাগরের উপকূলে ইহুদিবাদী ইসরাইলের মালিকানাধীন একটি তেল ট্যাংকারে ড্রোন হামলার জন্য ইরানকে দায়ী করে ইসরাইল, ব্রিটেন এবং আমেরিকা যে বক্তব্য বিবৃতি দিচ্ছে তারও নিন্দা জানান ইরানি রাষ্ট্রদূত।

কোনো ধরনের বিশ্বাসযোগ্য প্রমাণ উপস্থাপন ছাড়াই ইসরাইল এবং তার পশ্চিমা মিত্ররা ইরানকে দায়ী করে বক্তব্য দিচ্ছে তবে তেহরান জোরালো ভাষায় এসব অভিযোগ নাকচ করেছে। ইসরাইলের যুদ্ধমন্ত্রী বেনি গান্তজ আরো উস্কানিমূলক বক্তব্য দিয়ে বলেছেন, “ইরানের বিরুদ্ধে সামরিক আগ্রাসন চালাতে তারা প্রস্তুত।

বাহরাম কাসেমি বলেন, পারস্য উপসাগরের উত্তর উপকূল জুড়ে ইরান অবস্থিত এবং ইতিহাসের সব সময় আঞ্চলিক শান্তি ও স্থিতিশীলতা জোরদার করার জন্য ইরান চেষ্টা চালিয়েছে। পাশাপাশি পারস্য উপসাগরে জাহাজ চলাচলের স্বাধীনতা নিশ্চিত করার জন্য কাজ করেছে হাজার বছরের সভ্যতার অধিকারী ইরান। এটি হচ্ছে ইরানের নীতি আদর্শ এবং এই নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা ইরানের জন্যও প্রয়োজন।

বাহারাম কাসেমি বলেন, ইরানের পরমাণু ইস্যুটি যখন রাজনৈতিকভাবে সমাধানের নীতি গ্রহণ করেছে ওয়াশিংটন তখন তা বাধাগ্রস্ত করার জন্য তেলআবিব ও তার মিত্ররা চেষ্টা চালাচ্ছে। এ কাজে সম্ভাব্য সব ধরনের প্রতারণার আশ্রয় নিচ্ছে দখলদার ইসরাইল। তারা অগঠনমূলক এবং ধ্বংসাত্মক পরিবেশ তৈরী করে যুদ্ধ বাধাতে চায়। তেল ট্যাংকার মার্সার স্ট্রিটকে কেন্দ্র করে তারা যে ষড়যন্ত্র করেছে এটি তাদের প্রথম ষড়যন্ত্র নয় কিংবা শেষ ষড়যন্ত্রও নয়। তবে এই যুদ্ধ-ফাঁদের বিষয়ে ইরান অত্যন্ত সতর্ক থাকবে।

সূত্রঃ পার্সটুডে