মঙ্গলের আগ্নেয়গিরির ছবি পাঠালো আমিরাতের মহাকাশযান

সংযুক্ত আরব আমিরাতের মঙ্গল অভিযানের নাম আল আমাল বা আশা। তাদের মহাকাশযান মঙ্গলের আগ্নেয়গিরির ছবি পাঠাল। এর ফলে, আমিরাত হলো বিশ্বের প্রথম আরব দেশ যারা মঙ্গল অভিযান করল এবং ছবি পাঠাল।

এই মঙ্গল অভিযানের নেতৃত্বে আছেন এক নারী, সারাহ আমিরি। আমিরাতের বিজ্ঞানীদের মধ্যে তাকেই নেতৃত্বভার দেয়া হয়েছে। তিনি মঙ্গল অভিযানের ডেপুটি ম্যানেজারও। আমিরাতের আশা, ২১১৭ সালের মধ্যে মঙ্গলে বসতি স্থাপন করা যাবে। সেখানে মানুষ বসবাস করতে পারবে। ছবিতে দেখা যাচ্ছে, শিল্পীর কল্পনায়, মঙ্গলে মানুষের বাড়ি।

চলতি মাসে অবশ্য তিনটি দেশের মহাকাশযান মঙ্গলের কাছে গিয়েছে। সেগুলো হচ্ছে চীন, যুক্তরাষ্ট্র ও আমিরাত। বিশ্বের পঞ্চম দেশ হিসাবে আমিরাত মঙ্গলের কাছাকাছি পৌঁছল। আল আমাল যে ছবি পাঠিয়েছে, তাতে মঙ্গলের আগ্নেয়গিরি দেখা যাচ্ছে। এটা হলো সৌরমণ্ডলের বৃহত্তম আগ্নেয়গিরি। মঙ্গলের কক্ষপথে ঢোকার পর এই ছবি তুলেছে হোপ।

মহাকাশযান বানানো হয়েছে আমিরাতে। তা মঙ্গলে পাঠানো হয়েছে জাপান থেকে। সাত মাসের দীর্ঘ সফর শেষে তা মঙ্গলের কক্ষপথে পৌঁছায়। মঙ্গলের কক্ষপথে মহাকাশযানটির থাকার কথা দুই বছর। ফলে আরো অনেক ছবি সে পাঠাবে, যা এই লাল গ্রহকে জানতে ও বুঝতে সাহায্য করবে।

আমিরাতের প্রধানমন্ত্রী ও দুবাইয়ের শাসক শেখ মোহাম্মদ বিন রশিদ আল-মাকতৌম এই সাফল্যে উচ্ছ্বসিত। তিনি বলেছেন, আরব দুনিয়ার তরফ থেকে প্রথমবার মঙ্গলের ছবি নেয়া হলো। সৃষ্টি হলো ইতিহাস।