ভারতে শুরু হচ্ছে সংসদের বর্ষাকালীন অধিবেশন, বিভিন্ন ইস্যুতে সোচ্চার হবেন বিরোধীরা

ভারতে আগামীকাল (সোমবার) থেকে সংসদের বর্ষাকালীন অধিবেশন শুরু হবে। ১৯ জুলাই থেকে শুরু হয়ে অধিবেশন চলবে ১৩ আগস্ট পর্যন্ত। বিভিন্ন ইস্যুতে সরকারপক্ষকে চেপে ধরতে বিরোধীদলীয় এমপিদের হৈচৈয়ের জেরে সংসদের অধিবেশন উত্তাল হয়ে উঠতে পারে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

আজ (রোববার) সংসদের নিম্নকক্ষ লোকসভার প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসের দলনেতা অধীররঞ্জন চৌধুরী বলেন, তার দলের এমপি’রা মুদ্রাস্ফীতি, পেট্রোল-ডিজেল ও গ্যাসের দাম বৃদ্ধি, রাফায়েলে যুদ্ধবিমান চুক্তি এবং করোনাভাইরাস সংক্রমণে সরকারের ব্যর্থতার বিষয়টি সংসদে জোরালোভাবে উত্থাপন করবেন। তিনি বলেন, এগুলো আমাদের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু। সরকার আমাদের কথা না শুনলে তোলপাড় শুরু হবে।

বিজেপির একসময়ের সহযোগী এবং কেন্দ্রীয় সরকারের সাবেক মন্ত্রী পাঞ্জাবের আকালি দলের নেত্রী হরসিমরত কৌর বলেছেন, ‘বর্ষাকালীন অধিবেশনে কৃষকদের বিষয়টি আমাদের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। সরকারের কৃষি আইন প্রত্যাহার করা উচিত এবং কংগ্রেসেরও এই বিষয়ে আন্দোলন করা উচিত। কিন্তু পাঞ্জাবে কেবল তাঁরা চেয়ারের জন্য লড়াই করছে।

সংসদের বর্ষাকালীন অধিবেশনে বিরোধীরা মুদ্রাস্ফীতি, তেলের দাম বৃদ্ধি, করোনা ভ্যাকসিনের অভাব, কৃষকদের আন্দোলন, রাফায়েল যুদ্ধবিমান চুক্তি, দুর্নীতি ও জাতীয় নিরাপত্তার মতো বিষয়গুলো নিয়ে সরকারকে চেপে ধরার চেষ্টা করবে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। একইসঙ্গে সরকারপক্ষ তিনটি অধ্যাদেশসহ মোট ২৩ টি বিল চলতি অধিবেশনে পাশ করানোর চেষ্টা করবে। এরমধ্যে ১৭টি নয়া বিল রয়েছে।

আজ (রোববার) প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বর্ষাকালীন অধিবেশন সম্পর্কিত সর্বদলীয় বৈঠকে সংসদকে সুষ্ঠুভাবে পরিচালনায় বিরোধীদের কাছ থেকে সহযোগিতা চেয়েছেন। সর্বদলীয় বৈঠকে ৩৩ দলের নেতারা অংশগ্রহণ করেন এবং ৪০ জনেরও বেশি নেতা এতে শামিল হন। কেন্দ্রীয় সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী প্রহ্লাদ যোশি ওই বৈঠকের জন্য বিভিন্ন দলকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন।

বৈঠকে রাজনাথ সিং, পীযূষ গোয়েল, প্রহ্লাদ যোশি, মল্লিকার্জুন খাড়গে, অধীররঞ্জন চৌধুরী, আনন্দ শর্মা, সঞ্জয় রাউত, পশুপতি পারস, অনুপ্রিয়া প্যাটেল, রামগোপাল যাদব, টিআর বালু, হরসিমরত কৌর বাদল, ডেরেক ও’ ব্রায়েন, সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়, সঞ্জয় সিং ও অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

সূত্রঃ পার্সটুডে