ভারতে চলচ্চিত্র নির্মাতা আয়শা সুলতানার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা

চলচ্চিত্র নির্মাতা আয়শা সুলতানার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা দায়ের করা হয়েছে। বিজেপির লক্ষদ্বীপ ইউনিয়নের সভাপতি আবদুল কাদেরের দায়ের করা একটি আবেদনের ভিত্তিতে লক্ষদ্বীপের স্থানীয় থানায় সুলতানার বিরুদ্ধে ধারা ১২৪ এ মোতাবেক রাষ্ট্রদ্রোহিতা এবং ১৫৩ বি মোতাবেক বিদ্বেষমূলক বক্তব্যদানের কারণে মামলা হয়।–দ্য হিন্দু, আনন্দবাজার

তার বক্তব্য ছিল, লক্ষদ্বীপের মানুষদের উপর আঘাত হানতে করোনাভাইরাসকেই ‘জৈব অস্ত্র’ হিসেবে ব্যবহার করছে বিজেপি। টিভি চ্যানেলের বিতর্কসভায় কেন্দ্রের বিরুদ্ধে এমন মন্তব্যের অভিযোগে চলচ্চিত্র পরিচালক আয়েশা সুলতানার বিরুদ্ধে দেশদ্রোহের মামলা দায়ের করলো বিজেপি-র লক্ষদ্বীপ শাখা সভাপতি আবদুল কাদির। পরিচালক আয়শা সুলতানা নিজে লক্ষদ্বীপের বাসিন্দা। এই কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের তিনি প্রথম চলচ্চিত্র পরিচালক। লক্ষদ্বীপের কোভিড পরিস্থিতি নিয়ে আয়োজিত ওই বিতর্কসভায় প্রশাসক প্রফুল্ল খোড়া পটেলের বিরুদ্ধে মুখ খুলতে দেখা যায় তাঁকে।

আয়েসার বক্তব্য ছিল, অতিমারির প্রথম ঢেউয়ে লক্ষদ্বীপে একটিও সংক্রমণ ধরা পড়েনি। কিন্তু গত ডিসেম্বরে প্রফুল্ল পটেল নতুন প্রশাসক হয়ে আসার পর থেকেই একের পর এক তুঘলকি আইন-বিধি চালু হচ্ছে লক্ষদ্বীপে। যার জেরে দ্বিতীয় ঢেউয়ে ছড়িয়ে পড়েছে সংক্রমণ। সেখানকার নাগরিকদের অভিযোগ, লক্ষদ্বীপের নিজস্ব সংস্কৃতিকে নষ্ট করার পথে হাঁটছেন নতুন প্রশাসক। আয়েশার বিরুদ্ধে দেশদ্রোহের মামলা দায়েরের ঘটনার কড়া নিন্দা করেছে লক্ষদ্বীপের সাহিত্য পরিবর্তক সংঘ।

লক্ষদ্বীপ সাহিত্য প্রবর্তক সংঘ এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগের নিন্দা করে বলেছে, আয়শা সুলতানা কেবল লক্ষদ্বীপ প্রশাসকের গৃহীত “অমানবিক” পদক্ষেপের বিরুদ্ধে কথা বলেছেন। আয়শা সুলতানার সাথে একাত্মতা প্রকাশ করে সংঘাম বলেন, টকশোতে করা একটি মন্তব্যকে রাষ্ট্রদ্রোহিতার বক্তব্য হিসাবে করে মামলা করা খুবই দুঃখজনক।