ভারতকে ধ্বংস করতে নেপালের পানি যুদ্ধ, ভারত নেপাল সম্পর্কে টানাপোড়ন।

বন্যা পরিস্থিতি মোকাবেলায় নেপাল সহযোগিতা করছে না বলে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কাছে অভিযোগ করেছেন দেশটির দুই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। সোমবার বন্যা নিয়ে ছয় রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের সময় উত্তর প্রদেশ ও বিহারের মুখ্যমন্ত্রীরা এই অভিযোগ করেন।

নেপালের সঙ্গে সাম্প্রতিক কূটনৈতিক টানাপোড়নের প্রেক্ষাপটে এই অভিযোগ উত্থাপিত হলো। সীমান্ত নিয়ে দুই দেশের বিরোধ এখন তুঙ্গে।

তার ওপর দেবতা রামের জন্মভূমি নিয়ে নতুন করে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে। এর মধ্যে আবার গৌতম বুদ্ধের জন্মস্থান নিয়েও উত্তেজনা চলছে। এসবের মধ্যেই নদীর পানি নিয়ে এই বিরোধের সৃষ্টি হলো।

বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নিতিশ কুমার বলেন, সাম্প্রতিক বছরগুলোতে এই খাতে নেপাল সাহায্য করছে না। এবারও একই ঘটনা ঘটেছে। তিনি ২০০৮ সালে কোশি নদীর বন্যার উদাহরণ দেন। বিষয়টি দেখার জন্য কেন্দ্রের প্রতি অনুরোধ করেন তিনি।

কুমার বলেন, নেপালে প্রবল বর্ষণের কারণে উত্তর বিহারে ব্যাপক বন্যা দেখা দিয়েছে। দুই দেশের মধ্যে চুক্তি মতো সীমান্তে বন্যা প্রতিরোধের কাজ করা হয়। কিন্তু এবার নেপাল কয়েকটি জায়গায় বাঁধ মেরামতের অনুমতি দেয়নি।

অন্যদিকে উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিথ্যনাথ প্রধানমন্ত্রীকে বলেন, প্রতিবছর কেন্দ্রের দেয়া টাকায় গানদাক নদীর নেপাল অংশে বন্যা প্রতিরোধের কাজ করা হয়। কিন্তু এবার কোভিড-১৯ পরিস্থিতির কারণ দেখিয়ে নেপাল সেটা করতে দেয়নি।

এবছর স্বাভাবিকের চেয়ে ২০% বেশি বৃষ্টি হয়েছে নেপাল ও উত্তরখন্ডে। ফলে গানদাকসহ চারটি নদীতে প্লাবন দেখা দিয়েছে।

সূত্র : সাউথ এশিয়ান মনিটর