ব্যারেন্টস ও নরওয়ে সাগরে সাবমেরিন মহড়া শেষ করল রাশিয়ার নর্দার্ন ফ্লিট

রাশিয়ার উত্তরাঞ্চলীয় নৌবহর ব্যারেন্টস ও নরওয়ে সাগরে সাবমেরিনের মহড়া শেষ করেছে। সাগরে পানির সর্বোচ্চ প্রায় ৫০০ মিটার গভীরে সমরাস্ত্রসহ অন্যান্য ব্যবস্থার পরীক্ষা করার জন্য এ মহড়ার আয়োজন করেছিল রাশিয়া।

নৌবহরের প্রেস সার্ভিসের বরাত দিয়ে রুশ বার্তা সংস্থা ‘তাস’ জানিয়েছে, মহড়ায় চতুর্থ-প্রজন্মের সাবমেরিনসহ নানা মডেলের বেশ কয়েকটি সাবমেরিন অংশ নেয়। রাশিয়া বলেছে, এটি তাদের নিয়মিত মহড়া এবং দু’সপ্তাহেরও বেশি সময় ধরে এই অনুশীলন চলে।

মহড়ায় নর্দার্ন ফ্লিটের কিছু যুদ্ধজাহাজও অংশ নেয় যেগুলো পানির উপরে থেকে সাবমেরিনগুলোকে সঙ্গ দেয়। বর্তমানে বিশ্বের উন্নত দেশগুলোর কাছে যেসব সাবমেরিন রয়েছে সেগুলো পানির গভীরে সর্বোচ্চ ৫০০ মিটার পর্যন্ত যেতে সক্ষম।

রাশিয়া এটিকে নিয়মিত মহড়া বললেও সাম্প্রতিক সময়ে রুশ পানিসীমার কাছে মার্কিন নেতৃত্বাধীন ন্যাটো জোটের তৎপরতা বেড়ে যাওয়ার পরিপ্রেক্ষিত এ মহড়া অনুষ্ঠিত হলো।

রাশিয়ার আকাশসীমায়ও ন্যাটোর গোয়েন্দা বিমানের আনাগোনা বেড়ে গেছে। রাশিয়া ন্যাটো জোটের এসব তৎপরতাকে ‘সম্পূর্ণ উসকানিমূলক’ বলে এর নিন্দা জানিয়েছে। মস্কো বলেছে, এরইমধ্যে এ ধরনের উসকানিমূলক তৎপরতায় ছোটখাট সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটেছে।

অতি সম্প্রতি ক্রিমিয়া উপকূলে ব্রিটিশ ডেস্ট্রয়ার- ডিফেন্ডার অনুপ্রবেশ করলে রাশিয়া সতর্কতামূলক গুলি চালাতে বাধ্য হয় এবং এরপর ডেস্ট্রয়ারটি গতিপথ পরিবর্তন করে গভীর সমুদ্রে ফিরে যায়।

সূত্রঃ পার্সটুডে