বৃষ্টি থাকবে আরও এক সপ্তাহ

সারাদেশে আরও এক সপ্তাহ বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। তবে তুলনামূলক বেশী বৃষ্টি হওয়ার পূর্বাভাস রয়েছে দেশের দক্ষিণাঞ্চলে। রোববার (২৩ আগস্ট) আবহাওয়া অফিসের এক কর্মকর্তা বলেন, সারা বাংলাদেশেই বৃষ্টি থাকবে।

কিন্তু তুলনামূলক বেশী বৃষ্টির হওয়ার পূর্বাভাস দক্ষিণাঞ্চলে। আগামী দু’তিন দিনের মধ্যে জোয়ারের পানি সম্পূর্ণ নেমে যাবে বলে জানায় বন্যাপূর্বাভাস ও সতর্কীকরণকেন্দ্র।

আবহাওয়া অধিদফতর জানায়, ভারতের মধ্যপ্রদেশের পশ্চিম ভাগ এবং আশেপাশের এলাকায় সুস্পষ্ট লঘুচাপটি অবস্থান করছে। মৌসুমি বায়ুর অক্ষ রাজস্থান, সুস্পষ্ট লঘুচাপের কেন্দ্রস্থল, বিহার, পশ্চিমবঙ্গ ও রাজস্থান হয়ে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত হয়েছে। এর বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগরে পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশের উপর সক্রিয় ও উত্তর বঙ্গোপসাগরে মাঝারি অবস্থায় বিরাজ করছে।

পূর্বাভাসে বলা হয়, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও ঢাকা বিভাগের অধিকাংশ জায়গায়, সিলেট ও ময়মনসিংহ, রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের অনেক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি হতে পারে।

গত ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ বৃষ্টি হয়েছে কক্সবাজারে ১২২ মিলিমিটার। ঢাকায় ২৯, ময়মনসিংহে ৭, চট্টগ্রামে ৭১, সিলেটে ১৩, রাজশাহীতে ৪, রংপুরে ২, খুলনায় ৩ এবং বরিশালে ৩৪ মিলিমিটার।

আবহাওয়ার এক সতর্কবার্তায় বলা হয়, উত্তর বঙ্গোপসাগরে মৌসুমি বায়ু সক্রিয় এবং সঞ্চারণশীল মেঘমালার সৃষ্টি হয়েছে। এর প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগর ও এর আশেপাশের উপকূলীয় এলাকার ওপর দিয়ে ঝড়ো হাওয়া হয়ে যেতে পারে।

এজন্য চট্টগ্রাম, মোংলা, কক্সবাজার ও পায়রা সমুদ্র বন্দরকে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। সেইসঙ্গে মাছ ধরার নৌকা, ট্রলারগুলোকে উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে।

একই কারণে উপকূলীয় জেলা চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, লক্ষ্মীপুর, নোয়াখালী, পটুয়াখালী, বরগুনা, ভোলা, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা ও তাদের আশেপাশের দ্বীপ ও চরগুলোর নিম্নাঞ্চলে স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ১-২ ফুট বেশি উচ্চতার জোয়ার হতে পারে।