বিশেষ মর্যাদা বাতিলের বর্ষপূর্তিতে কারফিউয়ের কবলে কাশ্মীর

ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীরের স্বায়ত্বশাসন বাতিলের প্রথম বর্ষপূর্তিতে রাজ্যটিতে কারফিউ জারি করা হয়। গতকাল ৫ আগস্ট ছিল জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মযার্দা বাতিলের প্রথম বার্ষিকী।

স্বাধীনতার দাবিতে সোচ্চার কাশ্মীরের জনগণ দিনটি উপলক্ষে নানা প্রতিবাদের আয়োজনের ঘোষণা দেন। কাশ্মীরিদের প্রতিবাদ ভণ্ডুল করতে ভারত সরকার সেখানে দুই দিনের কারফিউ জারি করে।

রাজ্যজুড়ে রাস্তায় রাস্তায় কাটাতারের ব্যারিকেড দেয়া হয়। এছাড়া, লোকজনকে রাস্তায় না বেরিয়ে ঘরে থাকার আহ্বান জানানো হয়। রাস্তায় চলে সেনা ও আধা সামরিক বাহিনীর সদস্যদের মারমুখী সশস্ত্র টহল।

দিল্লির শাসনের বিরুদ্ধে কাশ্মীরের জনগণের প্রতিবাদ থামাতে এসব ব্যবস্থা নেয়া হয়। তবে বিশেষ মর্যাদা বাতিলের দিনকে কাশ্মীরের জনগণ ‘কালো দিবস’ হিসেবেই পালন করেন।

২০১৯ সালের ৫ আগস্ট নরেন্দ্র মোদির বিজেপি সরকার জম্মু-কাশীরের বিশেষ মর্যাদা ও স্বায়ত্বশাসন বাতিল করে ভারতের সঙ্গে একীভূত করে নেয়। এর প্রতিবাদ করে আসছেন কাশ্মীরিরা। প্রতিবাদ ঠেকাতে ভারত সরকার সেখানে দীর্ঘদিন ধরে কারফিউ দিয়ে রেখেছিল।

এছাড়া, ইন্টারনেট ও টেলিফোন যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন রাখা হয়। এ সময় জম্মু-কাশ্মীর কার্যত সেনা শাসনের অধীনে থাকে এবং প্রতিবাদী জনতার ওপর চলে নানা রকম নির্যাতন। কিন্তু এসব দমন-পীড়নের পরও কাশ্মীরের জনগণকে দিল্লির শাসনের প্রতি ততটা অনুগত করানো যায় নি; সেখানে চলছে স্বাধীনতার লড়াই।