বাগরামের দায়িত্ব আফগান বাহিনীর হাতে হস্তান্তর

রাজধানী কাবুল থেকে ৫০ কিলোমিটার দূরে এ বিমান ঘাঁটির অবস্থান। তালেবান ও আল-কায়েদার বিরুদ্ধে মার্কিন অভিযানের কেন্দ্রবিন্দু ছিল এটি। আফগান প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ফাওয়াদ আমান বলেন, বাগরাম বিমান ঘাঁটি থেকে জোট বাহিনীর সব দেশ ও মার্কিন সেনারা সরে গেছে। আফগান জাতীয় প্রতিরক্ষা নিরাপত্তা বাহিনীর (এএনডিএসএফ) হাতে এটি সোপর্দ করা হয়েছে। খবর রয়টার্সের।

তিনি বলেন, সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে এখন থেকে আমরা এই ঘাঁটি ব্যবহার করব। আফগানিস্তানে প্রথম মার্কিন সেনাদের পা পড়েছিল এ ঘাঁটিতে। সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে অংশ নিতে হাজারো সেনা ঢুকেছে এ ঘাঁটি দিয়েই। লড়াইয়ে মারা যাওয়া মার্কিন সেনাদের প্রস্থানও হতো এ ঘাঁটি হয়ে। আজ সেই ঘাঁটি থেকে সেনাদের বিদায়ের মধ্য দিয়ে অবসান হয়েছে দীর্ঘ এক অধ্যায়ের।

২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে সন্ত্রাসী হামলার পর সে বছর ডিসেম্বরেই আফগানিস্তানে যায় মার্কিন নেতৃত্বাধীন বাহিনী। শুরু হয় সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ, যে যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রকে মূল্য দিতে হয়েছে। বাগরাম বিমান ঘাঁটি যুক্তরাষ্ট্রের এই চড়া মূল্যের আফগান অভিযানেরই প্রতীক।

নিউইয়র্ক সিটির দমকল ও পুলিশ কর্মকর্তারা আফগানিস্তানে উড়ে গিয়ে এ ঘাঁটিতেই পুঁতেছেন ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের এক টুকরো ধ্বংসাবশেষ। প্রায় দুদশক আগের সেই টুকরোকে পেছনে ফেলে শুক্রবার ঘাঁটি ছেড়ে চলে গেছে মার্কিন ও ন্যাটোর সব সেনা সদস্য।