বরিশাল বিভাগে করোনায় আরো ২০ জনের মৃত্যু

করোনায় বরিশালে বিভাগে আরো ২০ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজসহ (শেবাচিম) বিভাগের বিভিন্ন হাসপাতালে করোনা ইউনিটে মারা গেছেন তাঁরা।

২০ জনের মধ্যে করোনা সংক্রমণে মারা গেছেন ১১ জন এবং করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন ৯ জন। একই সময়ে করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন ৪৭৯ জন।

আজ রবিবার (৮ আগস্ট) সকালে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বিভাগীয় পরিচালক ডা. বাসুদেব কুমার দাস এসব তথ্য জানিয়েছেন।

ডা. বাসুদেব আরো জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় শেবাচিম হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে উপসর্গ নিয়ে ৯ জন এবং করোনা ওয়ার্ডে করোনায় আক্রান্ত দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া বিভাগের বিভিন্ন জেলা-উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন আরো ৯ জন।

করোনা সংক্রমণে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ১১ জনের মধ্যে বরিশালে তিনজন, পটুয়াখালীতে তিনজন, ভোলায় চারজন ও পিরোজপুরে একজন রয়েছেন। সব মিলিয়ে বরিশাল বিভাগে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫৪৭ জনে।

একই সময় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৪৭৯ জন। এ নিয়ে বিভাগে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩৮ হাজার ২৯৬ জনে। তাদের মধ্যে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ২০ হাজার ৭৪১ জন।

আক্রান্তদের মধ্যে বরিশাল জেলায় নতুন ১৭৭ জন নিয়ে মোট ১৫ হাজার ৭৮৩ জন, পটুয়াখালীতে নতুন ৭১ জন নিয়ে মোট ৫ হাজার ২১১ জন, ভোলায় নতুন ৯৬ জনসহ মোট ৪ হাজার ৯৪৭ জন, পিরোজপুরে নতুন ৫৭ জনসহ মোট ৪ হাজার ৭৪৪ জন, বরগুনায় নতুন ৬১ জনসহ মোট ৩ হাজার ৩১০ জন ও ঝালকাঠিতে নতুন ১৭ জন নিয়ে মোট ৪ হাজার ৩০১ জন রয়েছেন।

এদিকে, শেবাচিম হাসপাতালের পরিচালকের দপ্তর সূত্রে জানা যায়, গত ২৪ ঘণ্টায় শুধু বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালের করোনার আইসোলেশন ওয়ার্ডে উপসর্গ নিয়ে নয়জনের এবং করোনা ওয়ার্ডে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে।

এ নিয়ে শুধু শেবাচিম হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডেই উপসর্গ নিয়ে ৮৬৯ জন এবং করোনা ওয়ার্ডে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ৩৪১ জনের মৃত্যু হয়েছে। আর উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরণ করা ৮৬৯ জনের মধ্যে ১১৫ জনের করোনা সন্দেহে নমূনা পরীক্ষার রিপোর্ট এখনও পাওয়া যায়নি।

ওই হাসপাতাল পরিচালক কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, গত ২৪ ঘণ্টায় (রোববার) সকাল পর্যন্ত শেবাচিমের করোনার আইসোলেশন ওয়ার্ডে ২৭ জন ও করোনা ওয়ার্ডে ৬ জন ভর্তি হয়েছেন। করোনা ও আইসোলেশন ওয়ার্ডে এখন চিকিৎসাধীন ২৮০ জন।