বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের ষড়যন্ত্রকারীদের বংশধররা এখনো সক্রিয়: নাসির উদ্দিন

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের সদস্যদের হত্যাকাণ্ড শুধু কয়েকজন বিপদগামী সেনাসদস্যদের দ্বারা সংগঠিত হয়নি। এর পিছনে ছিল দেশী বিদেশী ষড়যন্ত্র ছিল। এই হত্যাকাণ্ডের কুশীলব হিসাবে যারা কাজ করেছে তাদের অনেকের মরোণত্তোর বিচার করতে হবে বলে দাবি করেন আলোচকরা।

মঙ্গলবার নিয়মিত আয়োজন সংলাপে এসব কথা বলেন আলোচকরা। রোববার আলোচক হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী আবুল কালাম আজাদ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব বিশ্ববিদ্যালয়ের লিভার বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মামুন আল মাহতাব স্বপ্নীল এবং ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদুল আলম খান তপু। ভোরের পাতা সম্পাদক ও প্রকাশক ড. কাজী এরতেজা হাসানের পরিকল্পনা ও নির্দেশনায় অনুষ্ঠানের সঞ্চলনা করেন সাবেক তথ্য সচিব নাসির উদ্দিন।

অনুষ্ঠানের সঞ্চালক নাসির উদ্দিন আহমেদ বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের মাধ্যমে এদেশকে পিছিয়ে দিয়েছিল ষড়যন্ত্রকারীরা। এই ষড়যন্ত্রকারীদের বংশধররা এখনো সক্রিয় আছে। আগস্ট মাসকে ঘিরেই তারা ষড়যন্ত্রের জাল বুনে।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট হত্যাকাণ্ডের পর সেই ধারাবাহিকতায় ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা এবং ২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট সারাদেশে ধারাবাহিকভাবে ৬৩ টি জেলায় ৫ শতাধিক স্থানে বোমা হামলা করেছিল। ষড়যন্ত্রকারীরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে ১৯ বার হামলা চালিয়েছিল।

কিন্তু তাদের কোনো ষড়যন্ত্র আল্লাহর রহমতে সফল হয়নি। সেই কারণেই আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই করোনা সংকট মোকাবিলা করে, বন্যা এবং ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলা করে দেশের অর্থনীতিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন।