বঙ্গবন্ধুর সেই ভাস্কর্য স্থাপনের কাজ প্রায় শেষের দিকে

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের যে ভাস্কর্য স্থাপন নিয়ে সারাদেশ এখন উত্থাল। পক্ষে বিপক্ষে চলমান বিতর্ক যেন শেষ হচ্ছেই না। তবে চলমান উত্তেজনার আগুনের মাঝেই ভাস্কর্যটি স্থাপনের কাজ শুরু হয়েছে। এমনকি চীন থেকে ভাস্কর্যটিকে তৈরী করেও আনা হয়েছে।

এদিকে ওই ভাস্কর্যটি স্থাপনের প্রতিবাদে আগামীকাল (শুক্রবার) আবারও সারাদেশে বিক্ষোভের ডাক দিয়েছে ইসলামপন্থী সংগঠনগুলো। কিন্তু রাজধানীতে কোনো সমাবেশ করতে দেয়া হবেনা বলে আগেই ঘোষণা দিয়েছে নগর পুলিশ।

কি আছে এই ভাস্কর্যে?
যে ভাস্কর্যের কারণে সারাদেশের মানুষের মুখে একই বুলি তার অনুসন্ধানে গিয়ে দেখা যায়, যে কাঠামোটি কাপড়ে ঢাকা তার উচ্চতা চার তলার মতো। ভেতরে ঠিক কি রয়েছে তা রাস্তা থেকে বোঝা মুশকিল। ঢাকার দক্ষিণে ধোলাইপাড় মোড়ে এই ভাস্কর্যটি ঢাকা-মাওয়া এক্সপ্রেসওয়ে প্রকল্পের অংশ। ভাস্কর্যটি চীনে নির্মাণ করা হয়েছে এবং এটির স্থাপনার কাজ প্রায় শেষের পথে।

প্রকল্পের পরিচালক সবুজ উদ্দিন খান জানিয়েছেন, এমাসেই এটি উদ্বোধন করা সম্ভব হবে বলে আমরা আশাবাদী। এই ভাস্কর্যটির কাজ প্রায় শেষ। ১৬ই ডিসেম্বরের আগেই এটি শেষ হওয়ার কথা ছিল। তবে বঙ্গবন্ধু ট্রাস্টি বোর্ড থেকে একটা আনুষ্ঠানিক অনুমোদনের বিষয় রয়েছে। সেখান থেকে অনুমোদন হলে তারপর এটি উন্মোচন করা হবে।

তিনি বলেন, ভাস্কর্যটি তৈরি করতে নয় কোটি টাকা খরচ হয়েছে। চীন থেকে ইতিমধ্যেই ভাস্কর্যটি দেশে পৌঁছানোর পর ধোলাইপাড় মোড়ে এটি স্থাপন করার কাজ প্রায় শেষের পথে।।

প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী। ভাস্কর্যটির শিল্পী, এর আকৃতি বা অলঙ্করণ সম্পর্কে বিস্তারিত কিছু জানা যায়নি।