বগুড়ায় বিএনপির অনুষ্ঠান পণ্ড করে দিল ছাত্রলীগ

বগুড়ার ধুনটে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ‘জন্মদিনের’ অনুষ্ঠানে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ সময় পৌর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি মিনহাজ উদ্দিন মিঠুসহ তিনজন আহত হয়েছেন।

শনিবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে ধুনট সদর ইউনিয়নের হুকুমআলী বাসস্ট্যান্ড এলাকায় এ ঘটনায় দু’পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার ‘জন্মদিন’ উপলক্ষ্যে উপজেলা বিএনপি শনিবার সন্ধ্যার দিকে স্থানীয় হুকুমআলী বাসস্ট্যান্ড এলাকায় বিএনপি নেতা মুঞ্জিল হোসেনের দোকান ঘরে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

সেখানে ধুনট উপজেলা বিএনপির আহবায়ক আবদুল মতিন মন্ডল, যুগ্ম আহবায়ক আবদুল খালেক মন্ডল, সদস্য মোখফিজুর রহমান বাচ্চুসহ বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা কেক কাটা ও আলোচনা সভার প্রস্তুতি নেন।

এ সময় ধুনট পৌর ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক বিপুল হাসানসহ ১০-১২ জন নেতাকর্মী অতর্কিতভাবে ওই অনুষ্ঠানে হানা দেন। তারা চেয়ার-টেবিল ও টিনের বেড়া ভাংচুর করে। দৌড়ে পালাতে গিয়ে পৌর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি মিনহাজ উদ্দিন মিঠুসহ তিনজন আহত হন।

ধুনট উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য মোখফিজুর রহমান বাচ্চু জানান, কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে ধুনট উপজেলা বিএনপির উদ্যোগে খালেদা জিয়ার সুস্থতা কামনা এবং করোনায় মৃতদের আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছিল। কিন্তু ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা অতর্কিতভাবে হামলা চালিয়ে দোকানঘর ভাংচুর ও কয়েকজন নেতাকর্মীকে পিটিয়ে আহত করেছে। আহতরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।

অভিযোগ প্রসঙ্গে ধুনট পৌর ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক বিপুল হাসান বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মৃত্যুর দিনে বিএনপির নেতাকর্মীরা বেগম খালেদা জিয়ার ভুয়া জন্মদিন পালন করছিল। ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তাদের অনুষ্ঠান ভণ্ডুল করে দিয়েছে। তবে কাউকে মারধর বা ভাংচুর করা হয়নি।

ধুনট থানার ওসি কৃপা সিন্ধু বালা বলেন, খালেদা জিয়ার জন্মদিনের অনুষ্ঠানে কোনো হামলা হয়েছে কী না সে সম্পর্কে তার কিছু জানা নেই। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।