প্রায় দেড় বছর পর স্বাস্থ্যবিধি মেনে ওমরাহ পালন করছে শিশুরা

প্রায় দেড় বছর পর স্বাস্থ্যবিধি মেনে সৌদির শিশুরা ওমরাহ পালন শুরু করেছে। ১২-১৮ বছর বয়সী শিশুদের মধ্যে যারা করোনার টিকা নিয়েছে তাদের ওমরাহ পালন ও মসজিদে নববিতে নামাজ আদায়ের অনুমোদন দেয় সৌদির হজ ও ওমরাহ বিষয়ক মন্ত্রণালয়।

হারামাইন শরিফাইনের টুইটারে প্রকাশিত ভিডিওতে দেখা যায়, শিশু-কিশোরদের কাবাঘরের চত্বরে তাওয়াফ করতে দেখা যায়। শিশুদের অনেককে নামাজ আদায়, কোরআন তেলাওয়াত ও দোয়ায় অংশ নিতে দেখা যায়।

গত ৩০ জুন থেকে ১২-১৮ বছর বয়সী শিশুদের করোনা টিকা প্রদান শুরু হয়। সৌদির বিভিন্ন টিকাকেন্দ্রে নির্ধারিত সময়ে তাদের টিকা দেওয়া হয়। গত ১০ আগস্ট থেকে বিদেশি ওমরাযাত্রীদের আবেদন শুরু হয়। এরপর ১৩ আগস্ট নাইজেরিয়া থেকে ওমরাহ পালনে আসা প্রথম দলকে ফুল ও উপহার দিয়ে শুভেচ্ছা জানায় সৌদি কর্তৃপক্ষ।

পবিত্র মসজিদুল হারামে প্রতিদিন ৬০ হাজারের বেশি মুসল্লির ওমরাহ পালনের ব্যবস্থা করা হয়। প্রতি মাসে ২০ লাখ মুসল্লি ওমরাহ পালন করবেন। এ সংখ্যা ধীরে ধীরে আরো বাড়ানো হবে বলে জানা যায়।

করোনার সংক্রমণ রোধে ২০২০ সালের মার্চ থেকে সৌদির বাইরের দেশের নাগরিকরা ওমরাহ পালন করতে পারেননি। এরপর অক্টোবর মাস থেকে শুধু সৌদি আরবে অবস্থানরত সীমিতসংখ্যক মুসল্লি স্বাস্থ্যবিধি মেনে ওমরাহ পালন করেন এবং মক্কা-মদিনার পবিত্র দুই মসজিদে নামাজ আদায় করেন। এ ছাড়া করোনাকালে দুটি হজ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ২০২০ সালে সৌদিতে অবস্থানরত মাত্র ১০ হাজার মুসল্লি হজ পালন করেন। এ বছর প্রায় ৬০ হাজার মুসল্লি হজ পালন করেন।

সূত্র : আল-আরাবিয়া।