‘প্রধানমন্ত্রীকে ১৯ বার হত্যার চেষ্টা করেছে বিএনপি-জাপা ও জামায়াত’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ১৯ বার মেরে ফেলার চেষ্টা করেছে বিএনপির জিয়াউর রহমান, জাতীয় পার্টির এরশাদ ও যুদ্ধাপরাধী জামায়াত ইসলামের নেতাকর্মীরা। কিন্তু আল্লাহর রহমতে তিনি বেঁচে গেছেন। আর তিনি বেঁচে আছেন বলেই দেশের উন্নয়ন হচ্ছে, দেশের মানুষ সুখে আছে শান্তিতে আছে।

সর্বশেষ ২০০৪ সালে ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় আওয়ামী লীগের ২৪ নেতাকর্মী নিহত হয়েছেন। এর নেতৃত্ব দিয়েছেন খালেদা জিয়া ও তারেক জিয়া। আর বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারকে নৃশংসভাবে খুন করেছে জিয়াউর রহমানের পরিকল্পনায়।

আজ শুক্রবার বিকেলে ধামরাই বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় মিলনায়তনে জাতীয় শোক দিবস, মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদতবার্ষির্কী ও ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় নিহতদের স্মরণে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসেবে ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ঢাকা-২০ আসনের সংসদ সদস্য বেনজীর আহমদ এসব কথা বলেন।

পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি তোবারক হোসেন কামাল ও সাধারণ সম্পাদক এখলাস উদ্দিনের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মুক্তিযোদ্ধা খন্দকার বজলুল করিমের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি অ্যাডভোকেট আবুল কাশেম রতন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান, সাবেক কৃষি বিষয়ক সম্পাদক শফিক আনোয়ার গুলশান, ধামরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মাসুম খান, সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন সাকু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সিরাজ উদ্দিন, কেন্দ্রীয় যুব মহিলা লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক ও উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সোহানা জেসমিন মুক্তা, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর কাউন্সিলর শহিদুল্লাহ প্রমুখ।

অনুষ্ঠান শেষে প্রায় পাঁচ শ জনের মাঝে তবরাক বিতরণ করা হয়।