পেছন থেকে ছুরি মেরেছে আমেরিকা ও অস্ট্রেলিয়া: ফ্রান্স

আমেরিকা ও অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে সম্পর্কে টানাপড়েনের জের ধরে ওই দুই দেশ থেকে নিজের রাষ্ট্রদূতদের ডেকে পাঠিয়েছে ফ্রান্স। ফ্রান্স২৪ নিউজ চ্যানেল জানিয়েছে, ‘পরামর্শ করার জন্য’ দুই রাষ্ট্রদূতকে প্যারিসে তলব করা হয়েছে।

অস্ট্রেলিয়ার কাছে ফ্রান্সের সাবমেরিন বিক্রির চুক্তি বাতিলের ঘটনাকে কেন্দ্র করে সর্বসাম্প্রতিক এ উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে। ফ্রান্সের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জঁ-ইভস লে দ্রিয়ান বলেছেন, আমেরিকা, ব্রিটেন ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে স্বাক্ষরিত নিরাপত্তা চুক্তির ‘ভয়ঙ্কর পরিণতি’ বিবেচনায় নিয়ে ওয়াশিংটন ও ক্যানবেরায় নিযুক্ত রাষ্ট্রদূতদের তলব করা হয়েছে। ওই নিরাপত্তা চুক্তির কারণে অস্ট্রেলিয়ার কাছে ফ্রান্সের সাবমেরিন বিক্রির চুক্তি বাতিল হয়ে গেছে।

ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাকরনের ব্যক্তিগত নির্দেশে রাষ্ট্রদূতদের তলব করা হয়েছে। আমেরিকা, ব্রিটেন ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে স্বাক্ষরিত চুক্তির ভিত্তিতে অস্ট্রেলিয়া প্রথমবারের মতো আমিরকার গোপন সামরিক তথ্য ব্যবহার করে পারমাণবিক সাবমেরিক নির্মাণ করতে পারবে।

ওই তিন দেশ দাবি করেছে, ভারত মহাসাগর ও প্রশান্ত মহাসাগরে চীনের ক্রমবর্ধমান সামরিক উপস্থিতি থেকে সৃষ্ট উদ্বেগের কারণে তারা এ চুক্তি করেছে। চুক্তিটি চূড়ান্তভাবে ঘোষিত হওয়ার মাত্র কয়েক ঘণ্টা আগে ফ্রান্স বিষয়টি জানতে পেরেছে।

এ চুক্তি স্বাক্ষরের তীব্র নিন্দা জানিয়ে শুক্রবারই বিবৃতি দিয়েছে চীন। ফলে আমেরিকা, ব্রিটেন ও অস্ট্রেলিয়া চুক্তিটি সই করে একইসঙ্গে চীন ও ফ্রান্সকে ক্ষুব্ধ করেছে।

ফরাসি পররাষ্ট্রমন্ত্রী শুক্রবার এক বিবৃতিতে এই চুক্তি স্বাক্ষরকে ‘পেছন থেকে ছুরি মারা’ বলে অভিহিত করে বলেন, মিত্র দেশগুলোর এই অপ্রত্যাশিত আচরণ অনাকাঙ্ক্ষিত অনেক ঘটনার জন্ম দেবে। তবে হোয়াইট হাউজের একজন মুখপাত্র বলেছেন, বাইডেন প্রশাসন এ ঘটনার জন্য দুঃখিত এবং এ ব্যাপারে কথা বলার জন্য শিগগিরই ফ্রান্সের সঙ্গে যোগাযোগ করা হবে।

সূত্রঃ পার্সটুডে