পুতিনকে কড়া হুঁশিয়ারি দিয়ে বাইডেনের প্রথম বিদেশযাত্রা

রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে কড়া হুঁশিয়ারি দিয়ে প্রথম আনুষ্ঠানিক বিদেশ সফরে বের হয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।
গণতন্ত্রের সঠিক ধারণার পক্ষে কথা বলতে ইউরোপে যাচ্ছেন জানিয়ে তিনি বলেন, আসন্ন সম্মেলনে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে বেশ কিছু স্পর্শকাতর বিষয় উত্থাপন করা হবে। রাশিয়া যদি ক্ষতিকর কোনো কাজে যুক্ত হয়, তাহলে কঠিন পরিণতির মুখোমুখি হতে হবে।-খবর বিবিসি ও সিএনএনের

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, আমি জি৭ সম্মেলনে যাচ্ছি, এরপর ন্যাটো মন্ত্রীদের সঙ্গে এবং রুশ প্রেসিডেন্টের সঙ্গে বৈঠক করব। আমি যা জানাতে চাই, তা আমি তাকে বলব।

ট্রাম্প প্রশাসনের অধীনে যেসব মিত্র দেশের সঙ্গে সম্পর্ক টানাপোড়েন অবস্থায় ছিল, তাদের সঙ্গে সম্পর্ক জোরদার করাই তার এ সফরের মূল উদ্দেশ্য বলে জানিয়েছেন বাইডেন।

নতুন একটি আটলান্টিক সনদের বিষয়ে একমত হতে তিনি ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন। ১৯৪১ সালে উইনস্টন চার্চিল এবং ফ্রাংকলিন রুজভেল্টের মধ্যে যে চুক্তি হয়েছিল, এটি তারই একটি আধুনিক সংস্করণ। এ সফরে জেনেভায় রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে বৈঠক করার কথা রয়েছে বাইডেনের।

তিনি অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ, জলবায়ু পরিবর্তন, ইউক্রেনে রাশিয়ার সামরিক সম্পৃক্ততা, রাশিয়ার সাইবার-হ্যাকিং এবং অ্যালেক্সেই নাভালনিসহ বিভিন্ন ইস্যুতে পুতিনের সঙ্গে আলোচনা করবেন বলে আভাস দিয়েছে হোয়াইট হাউস। ইংল্যান্ডের কর্নওয়ালে যাওয়ার আগে বুধবার (৯ জুন) বিমানবন্দরে তিনি বলেন, পুতিনকে একটি স্পষ্ট বার্তা দেওয়া হবে।

তিনি জানান, আমরা রাশিয়ার সঙ্গে বিরোধ চাই না। আমরা একটি স্থিতিশীল সম্পর্ক চাই… তবে আমি এটাও পরিষ্কার করে বলেছি যে, রাশিয়ার সরকার যদি ক্ষতিকারক কার্যকলাপে লিপ্ত হয়, তাহলে যুক্তরাষ্ট্র কঠোর এবং সমুচিত জবাব দেবে।