পীরগঞ্জে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে শিশুকে নির্মমভাবে নির্যাতন

ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে তুচ্ছ ঘটনায় এক শিশুকে রশি দিয়ে গাছের সঙ্গে বেঁধে লাঠি দিয়ে পেটানোর অভিযোগ উঠেছে। গত শুক্রবার (৯ জুলাই) দুপুরে পীরগঞ্জ উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের সরকারপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

পিটুনিতে আহত শিশুর নাম জুয়েল রানা। সে দৌলতপুর ইউনিয়নের সরকারপাড়া গ্রামের দিনমজুর মনিরউদ্দীনের ছেলে। সরকারপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ে সে। জুয়েলকে সোমবার রাত ১১টায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলার মল্লিকপুর গ্রামে তামলাই দিঘির মাছ মারা শেষ হলে কাদা মাটিতে কয়েকজন শিশুসহ মাছ কুড়ানোর জন্য শিশু জুয়েল যায়। এসময় দিঘির পাশে বসবাসকারী রমজান আলী বাসু তাদের বাধা দেয়। কিন্তু শিশুরা তার কথা না শুনেলে রমজান তাদের ধাওয়া করলে ধরা পরে জুয়েল।

পরে ওই দিঘি পাড়ে জনৈক জহিরুল ইসলামের বাড়ির পাশে তাকে রশি দিয়ে গাছে বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করে। এ নির্যাতনের ঘটনার ছবি মঙ্গলবার (১৩ জুলাই) সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়। এ ঘটনায় মঙ্গলবার রমজান আলী বাসুকে আসামি করে পীরগঞ্জ থানায় মামলা করে জুয়েলের বাবা মনির উদ্দিন।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত রমজান আলী বাসু বলেন, ভয় দেখানোর জন্য হাসি তামাশা করে তাকে বেঁধে দুইটা বাড়ি দিয়েছি। আমি তাকে নির্যাতন করিনি। পীরগঞ্জ থানার ওসি প্রদীপ কুমার রায় বলেন, এ ব্যাপারে শিশুটি পিতা পীরগঞ্জ থানায় মামলা করলে আসামী রমজান আলী বাসুকে গ্রেফতার করে ঠাকুরগাঁও আদালতে সোর্পদ করা হয়। পরে আদালত তাকে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।