পাঞ্জশিরে সংক্ষিপ্ত বিচারে বন্দি হত্যা; অস্বীকার করল তালেবান

আফগানিস্তানের উত্তরাঞ্চলীয় পাঞ্জশির উপত্যকায় তালেবান সংক্ষিপ্ত বিচারের মাধ্যমে বন্দিদের হত্যা করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া একটি ভিডিওতে অন্তত একজন বন্দিকে হত্যা করতে দেখা যাচ্ছে।

সাধারণ টিশার্ট ও সামরিক প্যান্ট পরা নিরস্ত্র ওই ব্যক্তিকে তালেবান সদস্যরা একটি সড়কের পাশে নিয়ে যায় এবং এরপর ব্রাশফায়ার করে তাকে হত্যা করা হয়।আফগানিস্তানের আমাজ নিউজ জানিয়েছে, পাঞ্জশিরের আনাবা এলাকার একটি সড়কে এ হত্যাকাণ্ড চালানো হয়।দৃশ্যত নিহত ব্যক্তি তালেবানের কাছে আত্মসমর্পন করেছিলেন।

একই ভিডিওতে সাদা পোশাকধারী আরেকজন বন্দিকে তালেবানের কাছে নিজের প্রাণভিক্ষা চাইতে দেখা যায়। তিনি নিজেকে বেসামরিক ব্যক্তি দাবি করেন বলেন, “আমার আইডি কার্ড সঙ্গে আছে। আমি বেসামরিক ব্যক্তি।” এই ব্যক্তিকেও হত্যা করা হয়েছে কিনা বা তার ভাগ্যে কি ঘটেছে তা জানা যায়নি। তালেবান এর আগে বলেছিল, বেসামরিক লোকেরা নির্ভয়ে থাকতে পারে এবং তারা সাধারণ মানুষকে পাঞ্জশির ত্যাগ করতে নিষেধ করেছিল।

তবে তালেবানের অন্যতম মুখপাত্র আব্দুলহক উসুক পাঞ্জশিরে তাদের হাতে বন্দি হত্যার খবর অস্বীকার করেছেন। তিনি দাবি করেছেন, পাঞ্জশিরে কোনো যুদ্ধ বা সহিংসতা নেই, সবকিছু স্বাভাবিক রয়েছে।

এদকে আফগানিস্তানের মানবাধিকার কমিশনের প্রধান শাহারজাদ আকবর পাঞ্জশিরে নির্বিচার হত্যাকাণ্ডকে ‘লোমহর্ষক’ আখ্যায়িত করে এ বিষয়ে নিরপেক্ষ তদন্তের সুযোগ সৃষ্টি করার জন্য তালেবানের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।তিনি বলেছেন, যুদ্ধ ছাড়া যেকোনো ধরনের হত্যাকাণ্ড যুদ্ধাপরাধ। এ বিষয়ে নিরপেক্ষ তদন্ত করতে দেয়া উচিত।

সূত্রঃ পার্সটুডে