পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূলের জনপ্রিয় নেতা দেবাংশু গ্রেফতার

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের তৃণমূল কংগ্রেসের জনপ্রিয় নেতা দেবাংশু ভট্টাচার্যকে ত্রিপুরায় গ্রেফতার করা হয়েছে।রোববার ভোর রাতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। খবর ইন্ডিয়া টাইমসের।

খবরে বলা হয়, মহামারী আইন ভঙ্গের অভিযোগে ভোর রাতে গ্রেফতার করা হয় দেবাংশু, সুদীপসহ ১১ জন তৃণমূল নেতা-কর্মীকে। বেলা ১১টায় তাদের আদালতে পেশ করা হয়।

এর আগে শনিবার ত্রিপুরায় আক্রান্ত হয়েছিলেন যুব তৃণমূল নেতারা। ইটের আঘাতে রক্তাক্ত হন সুদীপ রাহা, জয়া দত্ত। আঘাত পান দেবাংশু ভট্টাচার্যও। এরপর শনিবার রাত থেকেই ত্রিপুরার খোয়াই থানার সামনে অবস্থান বিক্ষোভ শুরু করেন তৃণমূল কংগ্রেসের যুব নেতারা।
শনিবার ত্রিপুরায় আক্রান্ত হয়েছিলেন যুব তৃণমূলের নেতারা। শনিবার ত্রিপুরায় তাঁদের গাড়িকে লক্ষ্য করে ইঁট ছোঁড়া হয় বলে অভিযোগ।

ফেসবুক লাইভে দেবাংশু জানান, যুব তৃণমূল নেতা সুদীপ রাহার মাথা ফেটেছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ উপস্থিত থাকলেও কোনও সাহায্য পাওয়া যায়নি বলে জানান তিনি। এই হামলার প্রতিবাদে এবং আক্রান্ত কর্মীদের পাশে দাঁড়াতে আজই ত্রিপুরা যাচ্ছেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

একটি টুইটে তিনি লেখেন, বিজেপির হিংস্র গুন্ডাদের হাতে আক্রান্ত কর্মীদের পাশে দাঁড়াতে আমি ত্রিপুরায় আসছি। শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে এই লড়াই চালিয়ে যাব। এটাই আমার অঙ্গীকার। বিপ্লব দেবের ক্ষমতা থাকলে আটকান। ইতিমধ্যেই ত্রিপুরার উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন ব্রাত্য বসু, দোলা সেন এবং কুণাল ঘোষ।

শনিবার যুব তৃণমূল নেতাদের ওপর হামলার ঘটনার পর অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় একটি টুইটে উষ্মা প্রকাশ করে বলেন, ‘ত্রিপুরায় বিজেপির দুষ্কৃতীরা আসল রঙ দেখিয়ে দিয়েছে। এই বর্বর হামলা প্রমাণ করে সেখানে বিপ্লব দেবের সরকারের আমলে গুন্ডারাজ চলছে। আপনাদের হুমকি আক্রমণ শুধুমাত্র আপনাদের অমানবিকতা প্রমাণ করে। যা খুশি করুন, তৃণমূল নিজের জায়গা থেকে এক ইঞ্চি সরবে না।

দেবাংশু বলেন, ‘পরিবারের সকলকে বলছি আপনারা আমাকে নিয়ে চিন্তা করবেন না। উল্লেখ্য, গতকাল আমবাসায় তৃণমূলের যুব নেতা-নেত্রী দেবাংশু ভট্টাচার্য, সুদীপ রাহা ও জয়া ভট্টাচার্যের উপর হামলার প্রতিবাদে ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের কনভয় আটকায় তৃণমূল।

ত্রিপুরায় ধর্মনগরে সুবল ভৌমিকের নেতৃত্বে রাস্তা অবরোধ করে তৃণমূলকর্মীরা। রুখে দেওয়া হয় বিপ্লব দেবের কনভয়। বেশ কিছুক্ষণ গাড়ি ঘিরে বিক্ষোভ চলার পর পুলিশ গিয়ে তাদের হটিয়ে দেয়। তৃণমূল নেতা সুবলসহ বিক্ষোভকারীদের গ্রেফতার করেছিল পুলিশ।