পশ্চিমতীরে ইসরাইলি সেনাদের গুলিতে ফিলিস্তিনি বিক্ষোভকারী নিহত

অধিকৃত পশ্চিমতীরে নাবলুস শহরে দখলদার ইসরাইলি সেনাদের গুলিতে জাকারিয়া হামায়েল (২৮) নামে এক ফিলিস্তিনি বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছেন।

পশ্চিমতীরে ইহুদি বসতি স্থাপনের বিরুদ্ধে চলমান বিক্ষোভ মিছিলে শুক্রবার ইসরাইলি সেনাদের বেপরোয়া গুলিবর্ষণে ফিলিস্তিনি ওই তরুণ প্রাণ হারান। খবর প্যালেস্টাইন ক্রনিকেলের।

এ সময় আরও ১০ ফিলিস্তিনি বিক্ষোভকারী ইসরাইলি সেনাদের নির্বিচার গুলিবর্ষণে গুরুতর আহত হন বলে ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন।

ফিলিস্তিনি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানায়, নাবলুসের কাছে বেইতা গ্রামে বিক্ষোভের সময় ইসরাইলি সৈন্যদের গুলিতে জাকারিয়া নিহত হন।

ফিলিস্তিনি রেড ক্রিসেন্টের তথ্য অনুসারে, বিক্ষোভে ইসরাইলি বাহিনীর গুলিতে ২৩ বিক্ষোভকারী আহত হয়েছেন। এর মধ্যে ১০ বিক্ষোভকারী গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।

ইসরাইলি সামরিক বাহিনীর এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, বিক্ষোভে ইসরাইলি বাহিনীর গুলিবর্ষণের বিষয়ে তারা তদন্ত করবেন।

ফিলিস্তিনি বার্তা সংস্থা ওয়াফা জানায়, বেইতা গ্রামের বাইরে জাবাল সাবিহ পাহাড়ে ইসরাইলি বসতি স্থাপনের প্রতিবাদে ওই স্থানে বিক্ষোভকারীরা জড়ো হয়েছিলেন।

ইসরাইলি বাহিনী বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে তাজা গুলি ছাড়াও রাবারযুক্ত ধাতব গুলি ও টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ করে।

অধিকৃত পশ্চিম তীরে গাজার প্রতি সংহতি জানিয়ে ফিলিস্তিনিদের বিক্ষোভে ইসরাইলি হামলায় এ পর্যন্ত অন্তত ২৫ জন নিহত হয়েছেন।

ইসরাইল ১৯৬৭ সালে ছয় দিনের যুদ্ধে পশ্চিম তীর দখল করে নেয়। ১৯৯৩ সালে অসলো চুক্তির অধীনে পশ্চিমতীর ও গাজা নিয়ে ফিলিস্তিন রাষ্ট্র গঠনে ইসরাইল স্বীকৃতি দিলেও অঞ্চলটি এখনো ইসরাইলি কর্তৃপক্ষের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।