ত্বক সুস্থ রাখতে প্রতিদিন কতটুকু পানি পান করবেন

গরম আবহাওয়ার কারণে ত্বকে পানিশূন্যতা দেখা দিতে পারে। পানিশূন্যতার কারণে ত্বক শুষ্ক হওয়ার পাশাপাশি উজ্জ্বলতা হারায়।

পানিশূন্যতার পরিমাণ নির্ভর করে প্রধানত একজন ব্যক্তি কি পরিমাণ শারীরিক পরিশ্রম করেন, কী পরিমাণ পানি পান করেন এবং আবহাওয়ার উপর।

পানিশূন্যতার কারণে শরীর ও মন এক ধরনের চাপে থাকে। মেজাজের ভারসাম্যহীনতায় ভোগে। চোখের চারপাশে কালো দাগ দেখা যায় এবং চোখের ক্লান্তি দৃশ্যমান হয়।

তবে এখন প্রশ্ন হলো– ত্বক ভালো রাখতে ও সুস্থ থাকতে একজন মানুষের প্রতিদিন কতটুকু পানি পান করা উচিত।

কতটুকু পানি পান করবেন

গরমে শরীরে সবচেয়ে বেশি দেখা দেয় পানিশূন্যতা। এ পানিশূন্যতা পূরণে চাহিদামাফিক পানি পান করতে হবে। তবে একসঙ্গে অনেক পানি না খেয়ে ২ ঘণ্টা পর পর বা চাহিদানুযায়ী পানি পান করতে হবে। প্রতিদিন পানি খেতে হবে ৬ থেকে ৮ গ্লাস। এ ছাড়া পান করতে পারেন ডাবের পানি, স্যুপ ও বিভিন্ন ধরনের ফলের শরবত।

এ ছাড়া গরমে ত্বক ভালো রাখতে আরও যা করতে হবে।

যা করবেন

১. গরমের সময়ে ত্বক পরিষ্কার করার জন্য ওয়াটার বেসড ফেসওয়াস বা ক্লিনজার ব্যবহার করা উচিত । আর ২ থেকে ৩ ঘণ্টা পর পানি দিয়ে মুখমণ্ডল ধোয়া উচিত।

২. গোসলের পর ত্বকের ধরন বুঝে সানব্লক ক্রিম ব্যবহার করুন। সূর্যরশ্মি ত্বকে পানিশূন্যতা সৃষ্টি করে এবং ত্বকের উজ্জ্বলতা নষ্ট করে। তাই সরাসরি সূর্যরশ্মির সংস্পর্শে না যাওয়াই ভালো।

৩. দিনেরবেলা বাসা থেকে বাইরে গেলে সানব্লক ক্রিম, ছাতা, রোদটুপি ও সানগ্লাস ব্যবহার করুন।

৪. এ সময় পর্যাপ্ত ঘুম ও বিশ্রাম প্রয়োজন। ঘুম ভালো না হলে তার প্রভাব পড়বে ত্বকে। চাহিদামাফিক ঘুম না হলে ত্বক হয়ে পড়ে নিষ্প্রাণ ও চোখের চারপাশ কালো হতে পারে।

৫. এই সময় অতিরিক্ত মেকআপ করা থেকে বিরত থাকুন। শুধু ওয়াটার বেসড মেকআপ বা ফাউন্ডেশন ব্যবহার করলে ত্বক অতিরিক্ত শুষ্কতা থেকে রেহাই পাবে।

৬. কোনো ব্যক্তি যদি চিন্তামুক্ত থাকেন তবে শরীরের অন্যান্য অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের মতো ত্বকের কোষগুলো ভালো থাকে ও ত্বক উজ্জ্বল দেখায়।