তুরস্কের ওপর ইউরোপীয় ইউনিয়নের নিষেধাজ্ঞার হুমকি

তুরস্কের ওপর ইউরোপীয় ইউনিয়নের নিষেধাজ্ঞার হুমকি

ভূমধ্যসাগরে তুরস্কের প্রাকৃতিক সম্পদ অনুসন্ধান ঠেকাতে এবার দেশটির বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞার হুমকি দিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)।

বার্লিনে ইইউ পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠক শেষে শুক্রবার ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্র নীতি বিষয়ক প্রধান জোসেফ বোরেল এ কথা জানান। তুরস্কের বিরুদ্ধে কঠোর অর্থনৈতিক ব্যবস্থা নেয়ারও হুমকি দেন তিনি।

জানিয়েছে, তুর্কি-গ্রিস বিবাদে গ্রিসের প্রতি সমর্থন জানাতে এ বৈঠকের আয়োজন করে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)।

বৈঠক শেষে জোসেফ বোরেল জানান, ইউরোপীয় ইউনিয়ন ভূমধ্যসাগরে তুরস্কের অনুসন্ধান কার্যক্রম সংক্রান্ত সবকিছুকেই অবৈধ হিসেবে বিবেচনার কথা ভাবছে।

উত্তেজনা নিরসনে ইইউ প্রথমে আঙ্কারাকে সংলাপের একটি সুযোগ দিতে চায় উল্লেখ করে পররাষ্ট্র নীতি বিষয়ক এ প্রধান বলেন, তুরস্ক যদি পূর্ব ভূমধ্যসাগরে গ্রিস ও সাইপ্রাসের সঙ্গে উত্তেজনা কমিয়ে আনতে না পারে তাহলে দেশটির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সম্প্রতি পূর্ব ভূমধ্যসাগরে মিসর ও সাইপ্রাস বড় জ্বালানি খনির সন্ধান পেয়েছে। এর পরই তুরস্ক ওই এলাকায় প্রাকৃতিক সম্পদের খোঁজ পাওয়ার জন্য অতিমাত্রায় তৎপর হয়ে ওঠে। এ নিয়ে পূর্ব ভূমধ্যসাগরে ব্যাপক উত্তেজনা দেখা দেয়।

ভূমধ্যসাগরে তুরস্কের প্রাকৃতিক সম্পদ অনুসন্ধান ঠেকাতে মরিয়া হয়ে উঠেছে গ্রিস।

আঙ্কারার অনুসন্ধান জাহাজ ভূমধ্যসাগরে আরও কয়েক দিন থাকার ঘোষণার কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে গ্রিসের সংসদে মিসরের সঙ্গে সামুদ্রিক সীমানার চুক্তি অনুমোদন করা হয়। বলা হয়েছে– আগামী সপ্তাহ থেকে সামরিক মহড়া চালানো হবে।