তুরস্ককে ঠেকাতে মিসরের সঙ্গে চুক্তি গ্রিসের, উত্তেজনা বাড়ছে

ভূমধ্যসাগরে তুরস্কের প্রাকৃতিক সম্পদ অনুসন্ধান ঠেকাতে মরিয়া হয়ে উঠেছে গ্রিস। আঙ্কারার অনুসন্ধান জাহাজ ভূমধ্যসাগরে আরও কয়েক দিন থাকার ঘোষণার কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে গ্রিসের সংসদে মিসরের সঙ্গে সামুদ্রিক সীমানার চুক্তি অনুমোদন করা হয়। বলা হয়েছে– আগামী সপ্তাহ থেকে সামরিক মহড়া চালানো হবে।

মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম খবরে বলা হয়েছে, অ্যাথেন্স-কায়রোর মধ্যে চুক্তিটি ২০১৯ সালে স্বাক্ষরিত তুর্কি-লিবিয়ান চুক্তির একটি প্রতিক্রিয়া হিসেবে দেখা হচ্ছে। ওই চুক্তিটিতে লিবিয়ার যে অঞ্চলে ব্যাপক পরিমাণের হাইড্রোকার্বনের সন্ধান পাওয়া গেছে, সেখানে তুরস্কের প্রবেশের অনুমতি দেয়া হয়েছিল।

মিসর ও গ্রিসের চুক্তির মধ্যে তেল-গ্যাসসহ সমুদ্রের একচেটিয়া অর্থনৈতিক অঞ্চলে বিভিন্ন প্রাকৃতিক সম্পদের অনুসন্ধানের বিষয়টি অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

এদিকে বুধবার একই রকম চুক্তি হয়েছে ইতালি ও গ্রিসের সঙ্গে। গ্রিস সরকার মুখপাত্র স্টেলিয়াস পেটসাস বৃহস্পতিবার বলেন, তুরস্কের বেআইনি কার্যক্রমের কারণে অনুমোদন (চুক্তি) দ্রুত দেয়া হয়েছে।

গ্রিক প্রধানমন্ত্রী ক্রিয়াকোস মিতসোটাকিস সংসদে বলেন, আরেকটি বিলে আন্তর্জাতিক সামুদ্রিক সম্মেলনের আওতায় আইওনিয়ান সাগরে গ্রিসের উপকূলীয় অঞ্চলটি ছয় থেকে ১২ নটিক্যাল মাইল পর্যন্ত বাড়ানো হবে।

সম্প্রতি পূর্ব ভূমধ্যসাগরে মিসর ও সাইপ্রাস বড় জ্বালানি খনির সন্ধান পেয়েছে। এর পরই তুরস্ক ওই এলাকায় প্রাকৃতিক সম্পদের খোঁজ পাওয়ার জন্য অতিমাত্রায় তৎপর হয়ে ওঠে। এ নিয়ে পূর্ব ভূমধ্যসাগরে ব্যাপক উত্তেজনা দেখা দেয়।