তালেবানের ভয় আফগানিস্তানের নারী ফুটবল টিম পালিয়েছে

আফগানিস্তানের জাতীয় নারী ফুটবল দলের সদস্যরা পালিয়ে পাকিস্তানে চলে গেছেন। তবে তাদের সবার মাথায় স্কার্ফ ছিল। তালেবান গোষ্ঠীর হাতে আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণ চলে যাওয়ার একমাস পর এ ঘটনা ঘটলো।

আফগান নারী ফটুবল টিমের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ এক ব্যক্তি জানান, জাতীয় দলের কয়েকজন জুনিয়র খেলোয়াড়, তাদের কোচেরা এবং পরিবারের সদস্যরা আফগানিস্তান থেকে পশ্চিমা কোনো দেশে চলে যেতে চেয়েছিলেন। কিন্তু কাবুল বিমানবন্দরে ভয়াবহ বোমা হামলা ও গোলাগুলির ঘটনায় ব্মিানে উঠতে পারেন নি; সেখানে তারা আটকা পড়েন।

‘শান্তির জন্য ফুটবল’ নামে আন্তর্জাতিক উন্নয়ন বিষয়ক একটি এনজিওর অ্যাম্বাসাডর সর্দার নাভিদ হায়দার জানান, “ব্রিটেনভিত্তিক একটি এনজিও থেকে তাদের উদ্ধারের জন্য আমি একটি বার্তা পাই, এরপর আমি প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের কাছে চিঠি লিখি। তিনি আফগান নারী ফুটবলারদেরকে আসার অনুমতি দেয়ার পর তারা সীমান্ত পেরিয়ে পাকিস্তানে আসেন।

পাকিস্তান টুডে পত্রিকা জানিয়েছে, নারী ফুটবল দলের সঙ্গে মোট ৭৫ জন গতকাল (মঙ্গলবার) সীমান্ত পেরিয়ে পাকিস্তানে আসেন এবং লাহোরে তাদেরকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়।

সর্দার নাভিদ হায়দার জানান, আফগানিস্তানের অনূর্ধ্ব-১৪, অনূর্ধ্ব-১৬ ও অনূর্ধ্ব-১৮ দলের খেলোয়োড়েরা লম্বা বোরকা পরে সীমান্ত পাড়ি দেন এবং পাকিস্তানে প্রবেশের পর মাথায় শুধু স্কার্ফ ছিল।

১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত তালেবানের প্রথম আমলে আফগানিস্তানে নারীদের সমস্ত ক্রীড়া বন্ধ ছিল এবং এবার ক্ষমতায় আসার পরও তারা একই ইঙ্গিত দিয়েছে।

সূত্রঃ পার্সটুডে