ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণ মামলায় মজনুর বিচার শুরু

রাজধানীর কুর্মিটোলায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ছাত্রী ধর্ষণের মামলার একমাত্র আসামি মজনুর বিরুদ্ধে আদালত অভিযোগ গঠন করেছেন। আগামী ৯ সেপ্টেম্বর মামলার সাক্ষ্যগ্রহণের তারিখ ধার্য করা হয়েছে। অভিযোগ গঠনের মাধ্যমে এই মামলার বিচার শুরু হল। ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৭ এর বিচারক বেগম মোসাম্মৎ কামরুন্নাহারের ভার্চুয়াল আদালত অভিযোগ গঠনের এ আদেশ দেন।

আদালত সূত্র বলছে, এদিন মজনুকে আদালতে হাজির করা হয়নি। কাশিমপুর কারাগার থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আসামিকে হাজির দেখানো হয়। রাষ্ট্রপক্ষে সংশ্লিষ্ট আদালতের স্পেশাল পাবলিক প্রসিকিউটর আফরোজা ফারহানা আহমেদ (অরেঞ্জ) আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের প্রার্থনা করেন।

অপরদিকে মজনুুর পক্ষে কোনো আইনজীবী ছিলেন না। আদালত মজনুর বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ পড়ে শোনান। আসামি নিজেকে নির্দোষ বলে দাবি করেন। এরপর আদালত অভিযোগ গঠনের আদেশ দেন। এর আগে গত ১৬ আগস্ট এ মামলার অভিযোগপত্র আমলে নিয়ে অভিযোগ গঠনের শুনানির জন্য এ দিন ধার্য করেন আদালত।

এরও আগে গত ১৬ মার্চ ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একমাত্র আসামি মজনুর বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের পরিদর্শক আবু সিদ্দিক এ অভিযোগপত্র দাখিল করেন। এতে ১৬ জনকে সাক্ষী করা হয়েছে। এছাড়া অভিযোগপত্রে ধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রীর মোবাইল ফোনসহ ২০টি আলামত দেখানো হয়েছে।

আদালত সূত্র জানায়, ধর্ষণের ঘটনায় গত ৬ জানুয়ারি ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে রাজধানীর ক্যান্টনমেন্ট থানায় মামলাটি করেন। গত ৮ জানুয়ারি ক্যান্টনমেন্ট থানাধীন শেওড়া বাস স্ট্যান্ডে র‌্যাব আসামি মজনুকে গ্রেফতার করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।