জরুরি অবস্থার মধ্যেই শুরু হতে যাচ্ছে অলিম্পিক

ক্রীড়াঙ্গনের সবচেয়ে বড় আসর অলিম্পিক শুরু হওয়ার বাকি আর দুই সপ্তাহ। কিন্তু এখনও কমছে না করোনার প্রকোপ। আর তাই বৃহস্পতিবার ফের জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছে জাপান সরকার। ফলে এই জরুরি অবস্থার মধ্যেই দেশটিতে ঐতিহ্যবাহী অলিম্পিক শুরু হতে চলেছে।

গত বছরের ২৪ জুলাই থেকে ৯ অগাস্ট পর্যন্ত টোকিওতে অলিম্পিক গেমস শুরু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু বিশ্বজুড়ে মহামারি করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় জাপান সরকার ও আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি অলিম্পিক স্থগিত করে। পরবর্তীতে চলতি বছরের ২৩ জুলাই থেকে ৮ আগস্ট পর্যন্ত টোকিও অলিম্পিক আয়োজনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

কিন্তু বর্তমানে টোকিসহ একাধিক শহরে ফের সংক্রমণ বাড়ছে। আর এই কারণে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করলেন জাপানের প্রধানমন্ত্রী ইয়োশিহিদে সুগা। আগামী সোমবার থেকে এটি কার্যকর হয়ে চলবে ২৩ আগস্ট পর্যন্ত।

এর অর্থ জাপানে জরুরি অবস্থা চলাকালীনই আয়োজিত হবে অলিম্পিক প্রতিযোগিতা। এ প্রসঙ্গে জাপানের প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, আগামীদিনে জাপানে যাতে করোনার সংক্রমণ বৃদ্ধি না পায় সে কারণেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

এই সময় জরুরি অবস্থা ঘোষণার অর্থ, গোটা অলিম্পিক জুড়েই একাধিক বিধিনিষেধ জারি থাকবে। কয়েকদিন আগেও স্টেডিয়ামে নির্দিষ্ট সংখ্যক দর্শকের প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হলেও, মনে করা হচ্ছে এই পরিস্থিতিতে সেই নির্দেশনা বাতিল করা হবে।

আনাদোলু নিউজ এজেন্সির খবরে বলা হয়েছে, আগামী শুক্রবার অলিম্পিক আয়োজক কমিটি এবং জাপান প্রশাসন বৈঠকে বসতে পারেন। পরিস্থিতি যাই হোক, সুষ্ঠুভাবে এই টুর্নামেন্ট আয়োজনের ব্যাপারে আশাবাদী আয়োজকরা।

এর আগে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কারণে ১৯৪০ সালে অলিম্পিক বাতিল হয়ে গিয়েছিল। সেবারও আয়োজক ভেন্যু ছিল টোকিও। ভেন্যু পরিবর্তন করলেও একই কারণে ১৯৪৪ অলিম্পিকআয়োজনও সম্ভব হয়নি। তার আগে ১৯১৬ সালে গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিক বাতিল হয় প্রথম বিশ্বযুদ্ধের কারণে।