ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে দম্পতির অন্তরঙ্গ ভিডিও ধারণের অভিযোগ

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে গোপন ক্যামেরায় এক নারীর গোসলের ভিডিও ধারণ ও দম্পতির অন্তরঙ্গ ভিডিও ধারণের চেষ্টার অভিযোগে উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হিমেল সিকদারকে (২৩) আটক করেছে পুলিশ।

বুধবার (২০ জানুয়ারি) রাত সাড়ে ৭টার দিকে উপজেলা সদরের ইউনিয়ন পাড়া এলাকার একটি বাসা থেকে তাকে আটক করা হয়। তিনি একই ইউনিয়নের থলপাড়া গ্রামের বাসিন্দা।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, প্রায় আট মাস আগে হিমেল সিকদার বিয়ে করেন। তবে পরিবারের সদস্যরা তার বিয়ে না মানায় তিনি মির্জাপুর ইউনিয়নপাড়া এলাকায় একটি বাসায় ভাড়া থাকতেন। হিমেল সেখানে থাকাকালীন গোপন ক্যামেরায় এক তরুণীর গোসলের ভিডিও ধারণ করেন।

পরবর্তীতে তিনি মঙ্গলবার রাতে এক দম্পতির অন্তরঙ্গ মুহূর্ত ধারণ করতে ঘরে গোপন ক্যামেরা স্থাপনের চেষ্টা করেন। যা দম্পতি দেখে ফেলে। পরে সংশ্লিষ্টরা তাকে আটক করলে প্রথমে হিমেল গোপন ক্যামেরার কথা অস্বীকার করে। পরে আরও জিজ্ঞাসাবাদে সে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে। এ ছাড়া বুধবার দুপুরে তার ফোনে এক নারীর গোসলের পাঁচটি ভিডিও পাওয়া যায়। খবর পেয়ে রাত সাড়ে ৭টার দিকে পুলিশ তাকে আটক করে।

এ ব্যাপারে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. সাদ্দাম হোসেন খান গণমাধ্যমকে জানান, কারো ব্যক্তিগত অপরাধের দায় ছাত্রলীগ নেবে না। হিমেলকে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কারের জন্য কেন্দ্রীয় কমিটিতে সুপারিশ করা হবে।

মির্জাপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. খায়রুল লস্কর জানান, হিমেল ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। তার ফোন ও গোপন ক্যামেরা জব্দ করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে থানায় মামলার প্রক্রিয়া চলছে।