চীনে মুসলিম নারীদের জোরপূর্বক গর্ভপাত, সদ্যজাত শিশুকেও হত্যার নির্দেশ

চীনের শিনজিয়াং প্রদেশে সংখ্যালঘু উইঘুর মুসলিম নারীদের জোরপূর্বক গর্ভপাত ঘটানো হচ্ছে। সেইসঙ্গে সদ্যজাত শিশুকেও মেরে ফেলা হচ্ছে। দেশটির সরকারের পরিবার পরিকল্পনা নীতি অনুযায়ী নির্দিষ্ট সংখ্যার বেশি কেউ সন্তান নিলে বা কোন নারী তিন বছরের কম সময়ের মধ্যে দুইবার সন্তান জন্ম দিলে এমন ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

হাসিয়েত আবদুল্লা যিনি বর্তমানে তুরস্কে বাস করছেন, ১৫ বছর ধরে কাজ করতেন শিনজিয়াংয়ের হাসপাতালে তিনি  জানান, কিভাবে হাসপাতালের প্রসূতি বিভাগগুলো চীনা সরকারের পরিবার পরিকল্পনার এই নীতি বাস্তবায়ন করছে।

তিনি জানান, উইঘুর মুসলিম নারী ও অন্যান্য সংখ্যালঘুদের জন্য এই পরিবার পরিকল্পনা নীতি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, পরিবার পরিকল্পনার নীতির বাইরে কেউ গর্ভধারণ করলে তার গর্ভপাত করা হচ্ছে। প্রসূতি বিভাগে তা করা হচ্ছে, কেননা এটি সরকারের নির্দেশ।

আবদুল্লা বলেন, কোন নারী ‘আট এবং নয় মাসের গর্ভবতী’ হলেও তার গর্ভপাত করা হচ্ছে। এমনি মেডিক্যাল স্টাফরা সদ্যজাত শিশুকেও হত্যা করছে। এরপর ঐ শিশুর লাশ গুম করা হচ্ছে।

এছাড়া উইঘুর নারীদের জোরপূর্বক বন্ধ্যা এবং গর্ভপাত ঘটনোর ঘটনা অনেক বেড়েছে বলে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। এর আগে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দেশটিতে মুসলিমদের মসজিদ ভেঙ্গে বানানো হচ্ছে টয়লেট, মদের দোকান।